বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‌সৌজন্যতার নজির, একই মঞ্চে দিলীপ–জুন, সরকারি অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক স্লোগান

‌সৌজন্যতার নজির, একই মঞ্চে দিলীপ–জুন, সরকারি অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক স্লোগান

ফুটব্রিজ উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে হাজির এলাকার বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ ও তৃণমূল বিধায়ক জুন মালিয়া

এদিন এরা দুজনে মঞ্চে ওঠার আগে রাজনৈতিক স্লোগান দিতে শুরু করেন দুই দলের নেতা কর্মীরা।

রাজনৈতিক সৌজন্যের নজির। মেদিনীপুর স্টেশনের ফুটব্রিজ উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে হাজির এলাকার বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ ও তৃণমূল বিধায়ক জুন মালিয়া। রাজনীতিতে পরস্পর বিপরীত মেরুতে অবস্থান করলেও উন্নয়নের প্রশ্নে দুজনেই এক মঞ্চে। তবে সরকারি অনুষ্ঠানে দলীয় স্লোগান ওঠায় বিতর্ক রয়েই গেল।

এদিন মেদিনীপুর স্টেশনে ফুটব্রিজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল। সেই অনুষ্ঠানে সাংসদ হিসাবে হাজির ছিলেন দিলীপ ঘোষ ও এলাকার বিধায়ক হিসাবে ছিলেন জুন মালিয়া। প্রদীপ জ্বালিয়ে ফিতে কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন তাঁরা। দুজনে পরস্পরের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হলেও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দুজনকেই একই মঞ্চে দেখা গেল। তবে এদিন এরা দুজনে মঞ্চে ওঠার আগে রাজনৈতিক স্লোগান দিতে শুরু করেন দুই দলের নেতা কর্মীরা। একদিকে যেমন জয় শ্রীরাম স্লোগান শোনা যায়, অন্যদিকে জয় বাংলা স্লোগানও দেখা যায়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকেই এলাকার বিধায়ক জুন মালিয়া জানান, ‘‌উন্নয়নমূলক কাজে রাজনীতি করা উচিত নয়। উন্নয়নে যাতে বাধা না পড়ে, সেদিকে আমরা খেয়াল রাখব। তাই রাজনীতির রঙ না দেখে সাংসদের সঙ্গে একই মঞ্চে এসেছি।’‌ একইসঙ্গে তিনি জানান, রাজনৈতিক স্লোগানে খুব বেশি গুরুত্ব দিই না। অন্যদিকে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষের অবশ্য রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে জানিয়েছেন, যে দলেরই হোক না কেন, কেন্দ্রীয় সরকারি অনুষ্ঠানে এলাকার সাংসদ, বিধায়ককে ডাকা হয়। ওটা রাজ্য সরকারের শেখা উচিত।

বন্ধ করুন