বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌লাইন দেব না, আগে আমায় দেখুন’‌, উদ্ভট আর্জি না মানতেই চিকিৎসককে 'মারধর' যুবকের
চিকিৎসক শুভঙ্কর ঘোষ জানান, করোনা আবহে মানুষকে যেভাবে পরিষেবা দিয়েছি, তারপরে এই ধরনের ঘটনায় সত্যি মন ভেঙে যায়।
চিকিৎসক শুভঙ্কর ঘোষ জানান, করোনা আবহে মানুষকে যেভাবে পরিষেবা দিয়েছি, তারপরে এই ধরনের ঘটনায় সত্যি মন ভেঙে যায়।

‘‌লাইন দেব না, আগে আমায় দেখুন’‌, উদ্ভট আর্জি না মানতেই চিকিৎসককে 'মারধর' যুবকের

চিকিৎসক শুভঙ্কর ঘোষ জানান, করোনা আবহে মানুষকে যেভাবে পরিষেবা দিয়েছি, তারপরে এই ধরনের ঘটনায় সত্যি মন ভেঙে যায়।

তাঁকেই আগে দেখতে হবে, এই দাবিতে ডাক্তারকে চেয়ার থেকে তুলে মারধরের অভিযোগ উঠল এক অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের বিরুদ্ধে। শুধু মারধর করাই নয়, ওই চিকিৎসককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করারও অভিযোগ উঠেছে ওই যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে তারকেশ্বর গ্রামীণ হাসপাতালে। গোটা ঘটনায় হাসপাতাল চত্ত্বরে তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গিয়েছে, হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগী দেখছিলেন শুভঙ্কর ঘোষ নামে এক চিকিৎসক। রোগী দেখার সময় হঠাৎই এক অজ্ঞাতপরিচয় যুবক ডাক্তারের চেম্বারে ঢুকে পড়ে। হুমকির সুরে ওই যুবক জানান, তাঁকেই আগে দেখে দিতে হবে। কিন্তু চিকিৎসক তাতে রাজি হননি। যুবককে লাইনে দাঁড়াতে বলেন তিনি। এতেই শুভঙ্করের ওপর প্রচণ্ড রেগে যান ওই যুবক। চিকিৎসককে গালিগালাজ করার পাশাপাশি মারধরও করা হয়। শারীরিকভাবে নিগৃহীত করার অভিযোগে তারকেশ্বর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই চিকিৎসক।

হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত ওই যুবককে চিহ্নিত করা হয়েছে। চিকিৎসক শুভঙ্কর ঘোষ জানান, 'করোনা আবহে মানুষকে যেভাবে পরিষেবা দিয়েছি, তারপরে এই ধরনের ঘটনায় সত্যি মন ভেঙে যায়। পুলিশ প্রশাসনের ওপর আস্থা রয়েছে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হলে এই ধরনের ঘটনা ঘটতেই থাকবে।' এই ধরনের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন সেখানে উপস্থিত অন্যান্য রোগীরাও। তাঁদের মতে, অভিযুক্তের উপযুক্ত শাস্তি হওয়া দরকার।

বন্ধ করুন