বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ছাগলকে কামড়ে দেওয়ার অজুহাতে কুকুরকে পিটিয়ে মারল যুবক গ্রেফতার
ছাগলকে কামড়ে দেওয়ার অজুহাতে কুকুরকে পিটিয়ে মারল যুবক গ্রেফতার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
ছাগলকে কামড়ে দেওয়ার অজুহাতে কুকুরকে পিটিয়ে মারল যুবক গ্রেফতার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

ছাগলকে কামড়ে দেওয়ার অজুহাতে কুকুরকে পিটিয়ে মারল যুবক গ্রেফতার

  • নৃশংসতা সোনারপুরে।

নৃশংসতা সোনারপুরে। পিটিয়ে মারা হল বছরখানেকের সারমেয়কে। এই ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে সোনারপুর থানার পুলিশ। ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ওই অভিযুক্তের নাম বিশু দে। সপ্তাহখানেক আগে ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুরের চৌহাটিতে। অবশ্য ওই সময় ঘটনাটি প্রকাশ্যে না আসলেও পরে এই বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকায় ওই কুকুরটি ‘রকি’ নামে পরিচিত ছিল। স্থানীয় এক মহিলার কাছে সে দিনে দু’বার খেতে আসত। বেশ কয়েক দিন ধরেই ওই কুকুরটিকে এলাকায় না দেখতে পেয়ে তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, তাকে পিটিয়ে মেরে এলাকার একটি ক্লাবের পিছনে ফেলে দেওয়া হয়েছে। তিনি ওই কুকুরটির মৃতদেহ সৎকারের ব্যবস্থা করেন। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, বিশু নামে অভিযুক্তই ওই কুকুরটিকে পিটিয়ে মেরেছে। তিনি সেই বিষয়টি তাঁর ফেসবুক প্রোফাইলে তুলে ধরেন। 

ওই মহিলার পোস্ট দেখে বিষয়টি জানতে পেরে মেনকা গান্ধীর সংগঠনের তরফ থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকার এক সমাজকর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁকে ঘটনার বিষয়ে জানানো হয়। একসঙ্গে জেলার পুলিশ সুপারকেও বিষয়টি জানানো হয়। 

সমাজকর্মী ওই মহিলা এলাকায় খোঁজ নিয়ে বিষয়টির সত্যতা জানতে পারেন। অভিযুক্ত ব্যক্তির সঙ্গে গিয়েও দেখা করেন। এরপরেই সোনারপুর থানায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, একটি ছাগলকে কামড়ে দেওয়ার জন্য ওই কুকুরটিকে পিটিয়ে মারা হয়েছে। ওই এলাকায় কুকুরটিকে পাগল বলা হচ্ছিল। তারপরই তাকে পিটিয়ে মারা হয়েছিল বলে জানতে পেরেছেন তদন্তকারীরা।

বন্ধ করুন