বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তমোনাশ যদি দুর্গাপুর থেকে ফিরে..-নিজের বিধায়কের উদাহরণ দিয়ে করোনা লুকাতে মানা মমতার
করোনাভাইরাস 
করোনাভাইরাস 

তমোনাশ যদি দুর্গাপুর থেকে ফিরে..-নিজের বিধায়কের উদাহরণ দিয়ে করোনা লুকাতে মানা মমতার

আগে জানালে পরিস্থিতি খারাপ হত না, বলে মনে করেন তিনি। 

এদিন করোনা মোকাবিলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে নিদান দিয়েছেন, তার মধ্যে অন্যতম হল যে কোনও ভাবেই করোনা লুকাবেন না। মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে এটা লজ্জার কিছু নেই, কাওর দোষ নয়। তাই করোনা লুকিয়ে ফেলার প্রয়োজন নেই বলেই জানান তিনি। 

এই প্রসঙ্গে তিনি নিজের দলের বরিষ্ঠ বিধায়ক তমোনাশ ঘোষের প্রসঙ্গ টানেন। তমোনাশ ঘোষকে বাঁচানো যাবে কিনা, সেই নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন মমতা। মমতা বলেন যে ওর অবস্থা খুব খারাপ, ডাক্তাররা চেষ্টা করছে। 

মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির কাছেই থাকেন ফলতার বিধায়ক। তবে দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের চেয়ারম্যানের পদে থাকায় প্রায়ই দুর্গাপুর যান তিনি। সেখানেই তিনি করোনায় আক্রান্ত হন বলে মনে করা হচ্ছে। 

গত ২২ মে কলকাতায় ফেরার পর তিনি টেস্ট করান। তার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। এদিন সেই প্রসঙ্গে মমতা বলেন যে তমোনাশ যদি দুর্গাপুর থেকে ফিরে আসার পরেই ডাক্তার দেখাতো তাহলে হয়তো আমরা আরও বেশি সময় পেতাম। ওর পরে ওর পরিবার ও আশেপাশের বেশ কয়েকজনের হয়েছিল। তারা কিন্তু ঠিক হয়ে গেছে।

তৃণমূলের প্রথম সারির নেতাদের মধ্যে সুজিত বোস ও নির্মল ঘোষের শরীর অনেকটাই সুস্থ হয়ে গেলেও তমোনাশের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। 

এখনও অসুস্থ হলেও পানিহাটির বিধায়ক নির্মল ঘোষের শারীরিক অবস্থা নিয়ন্ত্রণেই। কিন্তু যত দিন যাচ্ছে ততই খারাপের দিকে যাচ্ছে তমোনাশ ঘোষের শারীরিক অবস্থা। আপাতত ভেন্টিলেটরে আছেন তিনি। 

বন্ধ করুন