বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কাকুর চশমাটা ভাল না, তাই বদলে দিয়েছি, গান্ধীমূর্তিতে সানগ্লাস পরিয়ে দাবি মাতালের
বাঁ দিকে গান্ধীমূর্তিতে পরানো সানগ্লাস। ডান দিকে ক্ষমা চাইছেন অভিযুক্ত লেদু।
বাঁ দিকে গান্ধীমূর্তিতে পরানো সানগ্লাস। ডান দিকে ক্ষমা চাইছেন অভিযুক্ত লেদু।

কাকুর চশমাটা ভাল না, তাই বদলে দিয়েছি, গান্ধীমূর্তিতে সানগ্লাস পরিয়ে দাবি মাতালের

  • অপরাধী চিহ্নিত হতেই তাঁকে বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। খবর যায় পুলিশে। এরই মধ্যে লেদুবাবুকে একপ্রস্থ উত্তমমধ্যম দেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

গান্ধীজির মূর্তিতে সানগ্লাস পরিয়ে এলাকাবাসীর কাছে বেদম মার খেলেন এক মত্ত ব্যক্তি। রবিবার সকালে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হুলুস্থুল পড়ে যায় বর্ধমান শহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডে। লেদু নামে ওই ব্যক্তির যদিও জাদি, ‘কাকুর চশমাটা ভাল না। তাই নতুন চশমা পরিয়ে দিয়েছি।’

রবিবার সকালে রাস্তায় বেরিয়ে বর্ধমান শহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের চক্ষু চড়কগাছ। দেখেন পাড়ার মোড়ে গান্ধীজির পূর্ণাবয়ব মূর্তিতে পরানো একটি সানগ্লাস। কে করল এই কাজ। তদন্তে নেমে স্থানীয়রা জানতে পারেন লেদু নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি শনিবার রাতে মত্ত অবস্থায় একাজ করেছে। গান্ধীজিকে কালো চশমা পরিয়ে মত্ত অবস্থায় সে বলতে থাকে, ‘দাদু আমরাও অন্ধ, তুমিও অন্ধ।’

অপরাধী চিহ্নিত হতেই তাঁকে বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। খবর যায় পুলিশে। এরই মধ্যে লেদুবাবুকে একপ্রস্থ উত্তমমধ্যম দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিশ এসে তাঁকে উদ্ধার করে। তখন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে অভিযুক্ত বলেন, ‘মূর্তির সামনেটাতে বসি। কাকু কাকু বলি। কাকুর চশমাটা ভাল না। তাই বদলে দিয়ছি।’

তবে স্থানীয়দের তরফে বিষয়টি মোটেও হালকা ভাবে নেওয়া হয়নি। মত্ত অবস্থায় গান্ধীজির মূর্তির সঙ্গে অভব্যতা আসলে গোটা দেশবাসীর সঙ্গে অভব্যতা বলে মনে করছেন তাঁরা। তাই অভিযুক্তের শাস্তি দাবি করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

 

বন্ধ করুন