বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নয়া ট্রেন–সহ বাংলার মানুষের সুবিধার্থে বেশ কিছু ঘোষণা পূর্ব রেলের, জানুন এক নজরে
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

নয়া ট্রেন–সহ বাংলার মানুষের সুবিধার্থে বেশ কিছু ঘোষণা পূর্ব রেলের, জানুন এক নজরে

  • আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার থেকে পুনরায় চালু করা হচ্ছে বর্ধমান–আসানসোল–বর্ধমান মেমু প্যাসেঞ্জার ট্রেনের পরিষেবা।

‌অতিরিক্ত যাত্রীর ভিড় সামাল দিতে শিয়ালদহ ও কলকাতা স্টেশন থেকে উত্তরবঙ্গগামী নতুন তিনটি স্পেশ্যাল ট্রেন চালাতে চলেছে পূর্ব রেলওয়ে। ট্রেনগুলি হল— শিয়ালদহ–বামনহাট স্পেশ্যাল (‌আপ ০৩১৪৭ এবং ডাউন ০৩১৪৮)‌, শিয়ালদহ–আলিপুরদুয়ার জংশন স্পেশ্যাল (‌আপ ০৩১৪৯ এবং ডাউন ০৩১৫০)‌ ও কলকাতা–হলদিবাড়ি সুপারফাস্ট স্পেশ্যাল (‌আপ ০২২৬১ এবং ডাউন ০২২৬২)‌। তিনটি ট্রেনই আপ এবং ডাউন উভয় রুটে চলবে। এবং প্রত্যেকটিই সম্পূর্ণভাবে সংরক্ষিত। এই ট্রেনগুলিতে কোনও জেনারেল কামরা থাকবে না। এবং তৎকাল কোটায় প্রতিটি ট্রেনে টিকিট পাওয়া যাবে।

শিয়ালদহ–বামনহাট স্পেশ্যাল (‌আপ ০৩১৪৭ এবং ডাউন ০৩১৪৮)‌—

সপ্তাহে প্রতিদিনই মিলবে এই ট্রেন। আপ ট্রেনটি শিয়ালদহ থেকে ছাড়বে সন্ধে ৭টা ৪০ মিনিটে এবং তা বামনহাট পৌঁছবে পরের দিন সকাল ১১টা ২০ মিনিটে। এবং ডাউন রুটে ট্রেনটি দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে বামনহাট থেকে ছেড়ে পরের দিন ভোর ৫টায় ১৫ মিনিটে শিয়ালদহ স্টেশনে পৌঁছবে।

যাত্রাপথে ট্রেনটি বর্ধমান, রামপুরহাট, মালদা টাউন, নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন ছাড়াও বিধাননগর রোড, দক্ষিণেশ্বর, গুসকরা, বোলপুর শান্তিনিকেতন, আহমেদপুর জংশন, সাঁইথিয়া, নলহাটি জংশন, পাকুর, নিউ ফরাক্কা জংশন, ডালখোলা, কিষাণগঞ্জ, আলুয়াবাড়ি রোড, জলপাইগুড়ি রোড, ধূপগুড়ি, ফালাকাটা, নিউ কোচবিহার এবং দিনহাটা স্টেশনে থামবে। ডাউন রুটে ট্রেনটি দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে বামনহাট থেকে ছেড়ে তা পরের দিন ভোর ৫টা ১৫ মিনিটে শিয়ালদহে পৌঁছবে। যাত্রাপথে ট্রেনটি নলহাটি জংশন, আহমেদপুর জংশন এবং গুসকরা বাদে উপরোক্ত প্রত্যেকটি স্টেশনে থামবে।

৬ ফেব্রুয়ারি শিয়ালদহ এবং ৭ ফেব্রুয়ারি বামনহাট থেকে এই ট্রেনের পরিষেবা শুরু হচ্ছে। ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রিজার্ভেশন কাউন্টার ও ইন্টারনেট উভয় মাধ্যমেই মিলবে এই ট্রেনের টিকিট।

শিয়ালদহ–আলিপুরদুয়ার জংশন স্পেশ্যাল (‌আপ ০৩১৪৯ এবং ডাউন ০৩১৫০)‌—

এটিও মিলবে প্রতিদিন। আপ রুটে শিয়ালদহ স্টেশন থেকে ট্রেনটি ছাড়বে রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে এবং সেটি আলিপুরদুয়ার জংশনে পৌঁছবে পরের দিন দুপুর সাড়ে ১২টায়। এবং ডাউন ট্রেনটি আলিপুরদুয়ার জংশন থেকে ছাড়বে দুপুর ৩টে ১৫ মিনিটে এবং সেটি পরের দিন সকাল ৮টা ২০–তে শিয়ালদহ স্টেশনে পৌঁছবে।

যাত্রাপথে ট্রেনটি বর্ধমান, রামপুরহাট, মালদা টাউন, শিলিগুড়ি জংশন এবং আলিপুরদুয়ার জংশন ছাড়াও বিধাননগর রোড, দক্ষিণেশ্বর, কামারকুণ্ডু, বোলপুর, আহমেদপুর, সাঁইথিয়া, পাকুর, নিউ ফরাক্কা, হরিশচন্দ্রপুর, বারসৈ জংশন, ডালখোলা, কিষাণগঞ্জ, আলুয়াবাড়ি রোড, ঠাকুরগঞ্জ, বাগডোগরা, নিউ মাল জংশন, ডালগাঁও, হাসিমারা এবং হ্যামিল্টনগঞ্জ স্টেশনেও থামবে।

শিয়ালদহ থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি এবং আলিপুরদুয়ার জংশন থেকে ৯ ফেব্রুয়ারি এই স্পেশ্যাল ট্রেনের প্রথম পরিষেবা মিলবে। রিজার্ভেশন কাউন্টার ও ইন্টারনেট উভয় মাধ্যমেই ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে এই ট্রেনের টিকিট কাটা যাবে।

কলকাতা–হলদিবাড়ি সুপারফাস্ট স্পেশ্যাল (‌আপ ০২২৬১ এবং ডাউন ০২২৬২)‌—

এই ট্রেনটি সপ্তাহে তিনদিন চলবে। আপ রুটে অর্থাৎ কলকাতা স্টেশন থেকে ছাড়বে মঙ্গলবার, বৃহস্পতিবার ও শনিবার। সকাল ৯টা ৫ মিনিটে কলকাতা স্টেশন থেকে ছেড়ে রাত ৮টা ২০ মিনিটে হলদিবাড়িতে পৌঁছবে এই ট্রেন। এবং ডাউন রুটে অর্থাৎ হলদিবাড়ি স্টেশন থেকে এই সুপারফাস্ট ট্রেনটি ছাড়বে বুধবার, শুক্রবার ও রবিবার। হলদিবাড়ি থেকে সকাল সাড়ে ৮টায় ছেড়ে কলকাতা স্টেশনে ট্রেনটি পৌঁছবে সন্ধে ৭টা ৪০ মিনিটে।

৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতা স্টেশন এবং ৭ ফেব্রুয়ারি হলদিবাড়ি থেকে এই ট্রেনের চাকা গড়ানো শুরু হবে। যাত্রাপথে এই সুপারফাস্ট স্পেশ্যাল ট্রেনটি রামপুরহাট ও নিউ জলপাইগুড়ি ছাড়াও বর্ধমান, বোলপুর শান্তিনিকেতন, পাকুর, মালদা টাউন, হরিশচন্দ্রপুর, কিষাণগঞ্জ এবং জলপাইহুড়ি স্টেশনে থামবে। ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রিজার্ভেশন কাউন্টার ও ইন্টারনেট উভয় মাধ্যমেই কাটা যাবে এই ট্রেনের টিকিট।

এদিকে, আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার থেকে পুনরায় চালু করা হচ্ছে বর্ধমান–আসানসোল–বর্ধমান মেমু প্যাসেঞ্জার ট্রেনের পরিষেবা। মঙ্গলবার এই ঘোষণা করেন পূর্ব রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এই রুটের ৬৩৫০৫/‌৬৩৫০৮, ৬৩৫২৫/‌৬৩৫২০ এবং ৬৩৫১৫/‌৬৩৫১৮— বৃহস্পতিবার থেকে এই প্যাসেঞ্জার ট্রেনগুলি পুনরায় পরিষেবা প্রদান করবে।

বন্ধ করুন