বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আরও বাড়ল কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা, এবার একলাফে ৯২ কোম্পানি, কেন?‌
কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। 
কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। 

আরও বাড়ল কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা, এবার একলাফে ৯২ কোম্পানি, কেন?‌

  • এবার সেই সংখ্যা আরও বেড়ে হল ৯২! এই ক্রমাগত কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়া নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

ক্রমাগত বেড়ে চলেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। আগামী ৩০ অক্টোবর রাজ্যের চার বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন রয়েছে। সেখানে প্রথমে ঠিক হয়েছিল ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করে ভোট করানো হবে। তারপর কিছুদিন পরেই সেই সংখ্যা বেড়ে হল ৮০। এবার সেই সংখ্যা আরও বেড়ে হল ৯২! এই ক্রমাগত কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়া নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

আগামী ৩০ অক্টোবর গোসাবা, খড়দহ, দিনহাটা ও শান্তিপুরে উপনির্বাচন রয়েছে। সেখানে মোট ৯২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী কেন লাগবে তা জানানো হয়নি। এবার হঠাৎ অতিরিক্ত ১২ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েনের কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সম্প্রতি বিজেপি নেতারা নির্বাচন আধিকারিকের অফিসে গিয়েছিলেন। তারপরই এই ১২ কোম্পানি বেড়ে গেল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক কুশীলবরা।

কোথায় কত কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে?‌ নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, দিনহাটায় থাকবে ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী, শান্তিপুরে ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী, খড়দহে ২০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং গোসাবায় ২৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে। বিএসএফের পাশাপাশি সিআরপিএফ, সিআইএস‌এফ, এসএসবি, আইটিবিপির জওয়ানরাও থাকবেন। সম্প্রতি দুই কেন্দ্রের পূর্ণাঙ্গ নির্বাচন এবং ভবানীপুর উপনির্বাচনের জন্য মোট ৭২ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করেছিল নির্বাচন কমিশন। এবার সেখানে একটিমাত্র কেন্দ্র বেড়েছে। তার জন্য এত বাহিনী উঠেছে প্রশ্ন।

উল্লেখ্য, একুশের নির্বাচনে খড়দহ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কাজল সিনহা ফলপ্রকাশের আগের দিনই প্রয়াত হন। আর ১২ মে বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন বিজেপির দুই সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও নিশীথ প্রামাণিক। তাঁদের কেন্দ্র শান্তিপুর–দিনহাটা। গোসাবার তৃণমূল বিধায়ক জয়ন্ত নস্করের মৃত্যু হয়। তাই এই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন হচ্ছে।

বন্ধ করুন