বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ১২ অক্টোবর থেকে লাগাতার ধর্মঘটে অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির কর্মীরা
অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ৪১টি অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির ৮০ হাজারেরও বেশি কর্মচারী।
অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ৪১টি অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির ৮০ হাজারেরও বেশি কর্মচারী।

১২ অক্টোবর থেকে লাগাতার ধর্মঘটে অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির কর্মীরা

  • ধর্মঘট ঘোষণা করে বিজেপি ও আরএসএস অনুমোদিত শ্রমিক সংগঠন ভারতীয় প্রতিরক্ষা মজদুর সঙ্ঘ (বিপিএমএস)–সহ তিনটি জাতীয় ট্রেড ইউনিয়ন।

এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন দেশের ৪১টি অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির ৮০ হাজারেরও বেশি সামরিক কর্মচারী। কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ড (ওএফবি) পরিচালিত অস্ত্র ও প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনকারী ইউনিটের বেসরকারীকরণের প্রতিবাদেই এমন সিদ্ধান্ত। 

১২ অক্টোবর থেকে লাগাতার ধর্মঘট চালিয়ে যাবেন কর্মচারীরা। মঙ্গলবার বিকেলে এই ঘোষণা করে বিজেপি ও আরএসএস অনুমোদিত শ্রমিক সংগঠন ভারতীয় প্রতিরক্ষা মজদুর সঙ্ঘ (বিপিএমএস)–সহ তিনটি জাতীয় ট্রেড ইউনিয়ন।

জাতীয় সুরক্ষার বিপক্ষে যাওয়া কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে ইতিমধ্যে ভারতের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী, প্রতিরক্ষা সচিব এবং প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদন দপ্তরের সচিবের কাছে ১৪টি স্মারকলিপি জমা দিয়েছে ওই ৩ শ্রমিক সংগঠন। যদিও যৌথ বিবৃতিতে ওই সংগঠনগুলির অভিযোগ, স্মারকলিপিগুলির কোনওটিই সঠিকভাবে বিবেচনা করা হয়নি।

বিপিএমএস–এর সাধারণ সম্পাদক মুকেশ সিং বলেন, ‘‌২৮ ‌জুলাই আমরা প্রতিরক্ষা সচিবের সঙ্গে দেখা করি। তিনি আশ্বাস দেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর কানে আমাদের বার্তা, বর্তমান অবস্থানের কথা পৌঁছে দেবেন। জানানো হবে লক্ষ লক্ষ কর্মচারীর উদ্বেগের কথা। কিন্তু এই আশ্বাসের কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে সে ব্যাপারে আমরা কোনও সাড়া পায়নি। সরকার বরাবরই আত্মনির্ভর হওয়ার কথা বলছে। অথচ ওএফবি–র অগ্রগতির কোনও সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না কেন?‌ এটাই আমাদের প্রশ্ন।’‌

এ দিকে, অনির্দিষ্টকালের জন্য ডাকা ধর্মঘটের ব্যাপারে জানতে হিন্দুস্তান টাইমস-এর পক্ষ থেকে মঙ্গলবার কলকাতায় ওএফবি হেডকোয়ার্টারে যোগাযোগ করা হলে কোনও সাড়া মেলেনি।

বন্ধ করুন