বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শেষ হয়নি লকগেট সারানোর কাজ, দুর্গাপুর জুড়ে জলসংকটের আশঙ্কা, প্রভাব মেজিয়াতেও
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

শেষ হয়নি লকগেট সারানোর কাজ, দুর্গাপুর জুড়ে জলসংকটের আশঙ্কা, প্রভাব মেজিয়াতেও

  • জলের অভাবে সোমবার মেজিয়া তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রের ৭ নম্বর ইউনিটটি সোমবারই বন্ধ করে দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার ৮ নম্বর ইউনিটটি বন্ধ করতে হয়েছে।

চার দিন কাটলেও মেরামতি হল না দুর্গাপুর ব্যারাজের ভাঙা লকগেটের। যার ফলে নিশ্চিত জলসঙ্কটের মুখে দাঁড়িয়ে দুর্গাপুর শহর। সঙ্গে একে একে বন্ধ হতে শুরু করেছে মেজিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ইউনিট। যার ফলে বিদ্যুৎসঙ্কট দেখা দিতে পারে পশ্চিমবঙ্গ ও ঝাড়খণ্ডের বিস্তীর্ণ এলাকায়। 

পূর্ত দফতর সূত্রে খবর, দুর্গাপুর ব্যারাজের ভাঙা ৩১ নম্বর লকগেট মেরামতির কাজ এখনো সম্পূর্ণ শেষ করে উঠতে পারেননি ইঞ্জিনিয়াররা। যার ফলে দুর্গাপুর ব্যারাজ ও মেজিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে জলসঙ্কটের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। 

জলের অভাবে সোমবার মেজিয়া তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রের ৭ নম্বর ইউনিটটি সোমবারই বন্ধ করে দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার ৮ নম্বর ইউনিটটি বন্ধ করতে হয়েছে। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের তরফে জানা গিয়েছে এর ফলে প্রায় ৯০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কম উৎপাদন হচ্ছে। যার প্রভাব পড়তে পারে দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চল ও ঝাড়খণ্ডের বিস্তীর্ণ এলাকায়। মেরামতির কাজ কবে শেষ হতে পারে তা এখনো জানা যায়নি। 

গত শনিবার রাতে ভাঙে দুর্গাপুর ব্যারাজের ৩১ নম্বর লকগেট। বাঁধের জল বার করে মেরামতির কাজ শুরু করতে রবিবার গড়িয়ে যায়। দুর্গাপুরের মেয়র দিলীপ অবস্থি রবিবার জানিয়েছিলেন, মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। কিন্তু এখনো তার কোনও লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

 

বন্ধ করুন