বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বিদ্যুতের তার চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মৃত ফরাক্কার যুবক
ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বিদ্যুতের তার চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মৃত ফারাক্কার যুবক : প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)
ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বিদ্যুতের তার চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মৃত ফারাক্কার যুবক : প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)

ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বিদ্যুতের তার চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মৃত ফরাক্কার যুবক

  • যুবকদের সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয়রা টের পেয়ে যান যে, ওই যুবকদের দল এলাকায় চুরির উদ্দেশ্যে ঢুকেছে। এর পর স্থানীয় বাসিন্দারা দল বেঁধে ওই যুবকদের ধরতে বেরিয়ে পড়েন।

পড়শি রাজ্যের সীমান্তে বিদ্যুতের তার চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিত মৃত্যু হল যুবকের। ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের ফারাক্কার ঝাড়খণ্ড লাগোয়া সীমান্তে। রবিবার রাতের ঘটনা হলেও সোমবার সকালে ঝাড়খণ্ডের কাংলই নদী থেকে ওই যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করে ঝাড়খণ্ড পুলিশ। তারাই ফরাক্কা থানায় খবর দেয়। কে বা কারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম মমতাজ শেখ (‌৩৮)‌। ঝাড়খণ্ড সীমান্ত লাগোয়া ফরাক্কার বাহাদুরপুর পঞ্চায়েতের বটতলা এলাকার বাসিন্দা সে। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে পেশায় ফলের ব্যবসায়ী মমতাজ কয়েকজন যুবকের সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়। তার পরে আর বাড়ি ফিরে আসেনি মমতাজ। পর দিন সকালে ঝাড়খণ্ডের কাংলই নদী থেকে ওই যুবকের দেহ উদ্ধার করা হয়। ছেলের মৃত্যুর খবরে শোকস্তব্ধ গোটা পরিবার।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, ঘটনার রাতে বাড়ি থেকে বেরোয় ওই যুবক। তারপর কয়েকজন যুবক মিলে হাইভোল্টেজ তার চুরি করার ছক কষে। পরিকল্পনা মতো তারা ঝাড়খণ্ডের সীমান্তবর্তী এলাকা বারুঘুটে যায়। অত রাতে এলাকায় কয়েকজন অপরিচিত যুবকদের সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয়রা  টের পেয়ে যান যে, ওই যুবকদের দল এলাকায় চুরির উদ্দেশ্যে ঢুকেছে।

এর পর স্থানীয় বাসিন্দারা দল বেঁধে ওই যুবকদের ধরতে বেরিয়ে পড়েন। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে বন্ধুরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও গ্রামবাসীদের হাতে ধরা পড়ে যায় মমতাজ। অভিযোগ উঠে, উত্তেজিত জনতা ওই যুবককে ধরে বেধড়ক মারধর করতে থাকে। মারের চোটে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মমতাজের। এরপরই তার দেহ কাংলই নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। সোমবার সকালে ওই যুবকের দেহ নদী থেকে উদ্ধার করে ঝাড়খণ্ড পুলিশ। তারাই ফরাক্কায় খবর দেয়।

বন্ধ করুন