বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হাওড়াগামী শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেসে আগুন, অল্পের জন্য এড়ানো গেল বড়সড় দুর্ঘটনা
হাওড়াগামী শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেসে আগুন (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে ফেসবুক Southern Railway)

হাওড়াগামী শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেসে আগুন, অল্পের জন্য এড়ানো গেল বড়সড় দুর্ঘটনা

  • বড়সড় দুর্ঘটনাও এড়ানো সম্ভব হযেছে মশাগ্রামের গেটম্যানের তত্পরতায়।

হাওড়াগামী ডাউন শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেসের বগির তলায় আচমকাই লাগল আগুন। ঘটনাটি ঘটে পূর্ব-বর্ধমানের মশাগ্রাম স্টেশনের কাছে এই ঘটনাটি ঘটে। ঘটনায আতঙ্কিত হয়ে যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে যান। ঘটনায় অবশ্য কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। বড়সড় দুর্ঘটনাও এড়ানো সম্ভব হযেছে মশাগ্রামের গেটম্যানের তত্পরতায়। জানা গিয়েছে, ট্রেনটি মশাগ্রাম পার হওয়ার কিছু পরে বগির তলায় ধোঁয়া বের হতে দেখেন গেটম্যান। তত্ক্ষণাত্ তিনি বিষয়টি ট্রেনের গার্ড ও স্টেশন ম্যানেজারকে বিষয়টি জানান। এরপর স্টেশন ম্যানেজার ওয়াটকির মাধ্যমে ট্রেনের চালককে ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত করেন। ঘটনাটি ঘটে গতকাল দুপুর আড়াইটা নাগাদ। পরে দুপুর ৩টে ১৫ নাগাদ ট্রেনটি ফের একবার হাওড়ার উদ্দেশে রওনা দেয়।

ম্যানেজারের থেকে খবর পেয়ে ট্রেনের চালক নিজেই আগুন নিভিয়ে ফেলেন। ট্রেনে থাকা অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা দিয়ে চালক আগুন নেভান। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন মশাগ্রাম স্টেশনের ম্যানেজারও। অনুমান করা হচ্ছে, ট্রেনের চাকার হাইড্রোলিকে ঘর্ষণের জেরে এই আগুন লেগে থাকতে পারে।

ঘটনা প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমকে গেটম্যান সৌমেন সাঁতরা জানান, ট্রেনের বগির তলায় আগুন দেখতে পেয়ে তিনি লাল পতাকা দেখান। তা দেখে ট্রেনের গার্ডই বিপদ বুঝতে পারেন। এদিকে আচমকা ট্রেন থেমে যাওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন যাত্রীরা। কৌতহল বসত অনেকেই মুখ বাড়িয়ে দেখতে চান ট্রেন থামার কারণ। এরপরই ধোঁয়া দেখতে পান তাঁরা। তাতেই বিপদের কথা বুঝতে পারেন যাত্রীরা। সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন থেকে নামতে শুরু করেন যাত্রীরা। পরে অবশ্য আগুন নিভে গেলে কিছুক্ষণে ফের ট্রেন রওনা দেয় গন্তব্যের উদ্দেশে।

বন্ধ করুন