বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সুন্দরবনে ফের মৎস্যজীবীকে টেনে নিয়ে গেল বাঘ, তল্লাশিতে বনদফতর

সুন্দরবনে ফের মৎস্যজীবীকে টেনে নিয়ে গেল বাঘ, তল্লাশিতে বনদফতর

প্রতীকি ছবি

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন বন দফতরের কর্মীরা। পৌঁছন গ্রামে অন্য মৎস্যজীবীরাও। তবে নিখোঁজ মৎস্যজীবীকে এখনো উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

সুন্দরবনে বাঘের হামলার শিকার হলেন আরও এক মৎস্যজীবী। নিখোঁজ অরবিন্দ বিশ্বাস উত্তর ২৪ পরগনার কুমিরমারি গ্রামের বাসিন্দা। রবিবার সকালে ঝিলার জঙ্গলে কাঁকড়া ধরার সময় তাঁকে টেনে নিয়ে যায় একটি বাঘ। খবর পেয়ে বনদফতর তল্লাশি শুরু করেছে। তবে অরবিন্দবাবুর খোঁজ এখনো পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রবিবার ভোরে আরও ২ জন মৎস্যজীবীর সঙ্গে বসিরহাট রেঞ্জের অন্তর্গত ঝিলার জঙ্গলে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন অরবিন্দবাবু। কাঁকড়া ধরার সময় জঙ্গল থেকে বেরিয়ে তাঁদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে একটি বাঘ। কিছুক্ষণের মধ্যেই অরবিন্দবাবুকে টেনে জঙ্গলে নিয়ে যায় বাঘটি। বাকি ২ মৎস্যজীবী গ্রামে ফিরে ঘটনার কথা জানান।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন বন দফতরের কর্মীরা। পৌঁছন গ্রামে অন্য মৎস্যজীবীরাও। তবে নিখোঁজ মৎস্যজীবীকে এখনো উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

সুন্দরবনের জঙ্গলে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে চলতি বছর বাঘের হামলার মুখে পড়েছেন বেশ কয়েকজন মৎস্যজীবী। তাঁদের কয়েকজন কোনওক্রমে প্রাণে বাঁচলেও সবার ভাগ্য সুপ্রসন্ন ছিল না। স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, অরবিন্দবাবুর জীবিত থাকার সম্ভাবনাও প্রায় নেই বললেই চলে।

নিখোঁজ মৎস্যজীবীর পরিবারে রয়েছেন স্ত্রী ও ২ নাবালক ছেলে। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, মৎস্যজীবী হিসাবে সরকারি খাতায় তাঁর নাম নথিভুক্ত ছিল না। ফলে ক্ষতিপূরণের বিষয়টিও ধোঁয়াশায়।

 

বন্ধ করুন