লকডাউনে আচমকা সংস্যায় পড়েন বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকরা।
লকডাউনে আচমকা সংস্যায় পড়েন বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকরা।

ওডিশা থেকে ফেরার পথে নিখোঁজ মুর্শিদাবাদের ৫ শ্রমিক, তদন্তে পুলিশ

  • বর্ধমানে পৌঁছানোর পরে পরিবারের সঙ্গে শেষ কথা হয়েছিল নিখোঁজ শ্রমিকদের।

ওডিশা থেকে বাড়ি ফেরার সময় মাঝপথে নিরুদ্দেশ হলেন মুর্শিদাবাদের পাঁচ পরিযায়ী শ্রমিক। তাঁদের সঙ্গে পরিবারের শেষ বার কথা হয় বর্ধমানে পৌঁছানোর পরে।

মুর্শিদাবাদের সুতি পুলিশ থানার লিচুতলা ও, রঘুনাথপুর ও হাসানপুর গ্রামের বাসিন্দা রাশেল শেখ (১৮), বাহাদুর শেখ (১৬), উজির শেখ (১৯), জিয়াউর শেখ (৪০) ও আশরাফুল শেখ (৪২) দুই মাস আগে ওডিশায় রাজমিস্ত্রি ও মজুর হিসেবে কাজ করতে যান।

পুলিশকে তাঁদের পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, করোনা সংক্রমণের কারণে দেশজুড়ে লকডাউন আরোপ হওয়ার পরে তাঁদের থাকার জায়গা ও খাবারের অভাব দেখা দেয়।



আরও পড়ুন: লকডাউনে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে বাংলা অধিনায়ক


গত ২০ এপ্রিল বাড়ি ফেরার উদ্দেশে তাঁরা অন্য ১২ জনের সঙ্গে একটি পশ্চিমবঙ্গমুখী ট্রাকে সওয়ারি হন, জানিয়েছেন রাশেলের ভাই সামাউন শেখ। তিনি জানিয়েছেন, বর্ধমান থেকে ওডিশায় আলু পৌঁছে দিয়ে ওই ট্রাকটি ফিরছিল।

গত ২১ এপ্রিল সকাল ১০টা নাগাদ ট্রাকচালক তাঁদের বর্ধমানে একটি বাস টার্মিনাসের সমনে নামিয়ে দেন। সেখান থেকে মুর্শিদাবাদগামী কোনও গাড়ি ধরার পরিকল্পনা করেছিলেন রাশেল ও তাঁর সঙ্গীরা। কিন্তু তার পর থেকে তাঁদের কারও ফোনে সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি উদ্বিগ্ন আত্মীয়-পরিজনদের।



আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে বাড়ি ফেরা যাবে না, তবে পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজের অনুমতি দিল কেন্দ্র


বৃহস্পতিবার গোটা বিষয়টি জানিয়ে সুতি থানায় নিরুদ্দেশের ডায়েরি করেছেন নিখোঁজ শ্রমিকদের পরিবার।

জাঙ্গিপুর জেলার পুলিশ সুপার ওয়াই রঘুবংশী জানিয়েছেন, ‘বৃহস্পতিবার আমরা বিষয়টি জানতে পারি্। নিখোঁজ শ্রমিকদের সন্ধান করার চেষ্টা শুরু হয়েছে।’

বন্ধ করুন