বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Turtle meat: ২ হাজার টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিল কচ্ছপের মাংস, হানা দিয়ে উদ্ধার করল বন বিভাগ
কচ্ছপের মাংস উদ্ধার করল বন বিভাগ। প্রতীকী ছবি।

Turtle meat: ২ হাজার টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিল কচ্ছপের মাংস, হানা দিয়ে উদ্ধার করল বন বিভাগ

  • জানা গিয়েছে, ওই বাজারে দুজন যুবক গত কয়েকদিন ধরেই চড়া দামে কচ্ছপের মাংস বিক্রি করছিল। বনদফতরের নাথুয়া রেঞ্জের বন কর্মীরা সেই খবর পেয়ে গতকাল বাজারে হানা দেয়। তবে তাদের দেখে বুঝতে পেরে মাংস খেলে ফলে ওই ২ যুবক। ফলে তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি বনদফতর। তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

অবৈধভাবে বিক্রি হচ্ছিল কচ্ছপের মাংস। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বাজারে হানা দিয়ে ২০ কেজি কচ্ছপের মাংস উদ্ধার করল বনদফতর। গতকাল ডুয়ার্সের নাথুয়াহাট পুরাতন বাজার এলাকায় হানা দেন বনকর্মীরা। সেখান থেকেই এই পরিমাণ মাংস উদ্ধার হয়। গত কয়েকদিন ধরেই অবৈধভাবে ওই বাজারে চড়া দামে কচ্ছপের মাংস বিক্রি হচ্ছিল। প্রায় ২ হাজার টাকা কেজি দরে সেখানে কচ্ছপের মাংস বিক্রি হচ্ছিল বলে খবর পায় বন দফতর। এরপরেই তারা সেখানে হানা দেয়।

জানা গিয়েছে, ওই বাজারে দুজন যুবক গত কয়েকদিন ধরেই চড়া দামে কচ্ছপের মাংস বিক্রি করছিল। বনদফতরের নাথুয়া রেঞ্জের বন কর্মীরা সেই খবর পেয়ে গতকাল বাজারে হানা দেয়। তবে তাদের দেখে বুঝতে পেরে মাংস খেলে ফলে ওই ২ যুবক। ফলে তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি বনদফতর। তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একইসঙ্গে, সেখান থেকে কচ্ছপের মাংস উদ্ধার হয়েছে।

বনবিভাগের অনারারি ওয়াইল্ড লাইফ ওয়ার্ডেন সীমা চৌধুরী জানিয়েছেন, কচ্ছপগুলি ডায়না জঙ্গল লাগোয়া নদী থেকে ধরে আনা হয়েছিল। আর সেই সমস্ত কচ্ছপের মাংস বিক্রি করা হচ্ছিল চড়া দামে। এই ঘটনার সঙ্গে আরও কারা জড়িত তা জানার চেষ্টা চালাচ্ছে বনদফতর। প্রসঙ্গত, বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইনে কচ্ছপ পাচার করা বা কচ্ছপের মাংস বিক্রি করা আইনত দণ্ডণীয়। তারপরেও রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অবৈধভাবে কচ্ছপ পাচার করার পাশাপাশি মাংস বিক্রি করা হচ্ছে। বিশেষ করে উত্তর ২৪ পরগনায় প্রায়ই কচ্ছপ পাচার করার খবর পাওয়া যায়।

বন্ধ করুন