বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > রাজ্যে আসছে ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী, চার কেন্দ্র মুড়বে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায়
কেন্দ্রীয় বাহিনী। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
কেন্দ্রীয় বাহিনী। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

রাজ্যে আসছে ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী, চার কেন্দ্র মুড়বে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায়

  • এবার ৩০ অক্টোবর শান্তিপুর, দিনহাটা, খড়দহ এবং গোসাবায় উপনির্বাচন হবে।

দুর্গাপুজো মিটলেই নির্বাচনের মেজাজে ফিরবে বাংলা। কারণ এই রাজ্যের চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন রয়েছে। তাই এখানে নিয়ে আসা হবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। ভারী বুটের শব্দে কাঁপবে বাংলার মাটি। ভবানীপুর–সহ তিন কেন্দ্রের নির্বাচনে ১৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী আনা হয়েছিল। কিন্তু মানুষ বেরিয়ে এসে নিজেদের রায় দিয়েছেন। ভোটের ফলাফল ৩–০।

এবার ৩০ অক্টোবর শান্তিপুর, দিনহাটা, খড়দহ এবং গোসাবায় উপনির্বাচন হবে। তাই আবার আসতে চলেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। ওই চার কেন্দ্রে আপাতত ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। প্রতিটি বুথ মুড়ে ফেলা হবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের দিয়ে। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেদিকে খেয়াল রাখতেই এই পদক্ষেপ।

কেমন থাকছে কেন্দ্রীয় বাহিনী বিন্যাস?‌ জানা গিয়েছে, এবার থাকছে ৯ কোম্পানি বিএসএফ, ৮ কোম্পানি সিআরপিএফ, ৫ কোম্পানি এসএসবি এবং বাকি সিআইএসএফ। তবে কোন কেন্দ্রের জন্য কতজন বাহিনী বরাদ্দ করা হবে তা সংশ্লিষ্ট জেলার নির্বাচনী আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। যদি প্রয়োজন পড়ে তাহলে আরও কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হতে পারে।

রাজ্যের বাকি চারটি কেন্দ্রে উপনির্বাচনে ঝাঁপিয়ে পড়তে চাইছে বিজেপি। কারণ প্রতিনিয়ত তারা রাজনীতিতে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ছে। আর তৃণমূল কংগ্রেস ক্রমাগত বিধায়ক সংখ্যা বাড়িয়ে চলেছে। আগামী ৩০ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ঘোষণা করা হয়েছে। ২ নভেম্বর ভোট গণনা। ওই চার কেন্দ্রে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত মনোনয়ন পেশ করতে পারবেন প্রার্থীরা। ১১ অক্টোবর স্ক্রুটিনি এবং ১৩ অক্টোবর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।

বন্ধ করুন