বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Berhampur: বন্ধুর হাতে খুন হয়েছিল কিশোর, দুদিন পর নদীতে ভেসে উঠল দেহ, চাঞ্চল্য বহরমপুরে
বহরমপুরের বন্ধুকে খুনের অভিযোগ। প্রতীকী ছবি

Berhampur: বন্ধুর হাতে খুন হয়েছিল কিশোর, দুদিন পর নদীতে ভেসে উঠল দেহ, চাঞ্চল্য বহরমপুরে

  • অবশেষে আজ সকালে হঠাৎই নদীর ধারে ওই কিশোরের মৃতদেহ ভেসে ওঠে। খবর পেয়ে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে বহরমপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠাই। সেখানে তার দেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে। রণির পরিবারের সদস্যরা দেহটি শনাক্ত করেছেন।

দুদিন ধরে নিখোঁজ থাকার পর নদী থেকে উদ্ধার হল কিশোরের মৃতদেহ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানতে পেরেছে খুন করে ওই কিশোরকে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এই অভিযোগে ইতিমধ্যে ওই কিশোরের এক বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি মুর্শিদাবাদের বহরমপুর থানার কৃষ্ণমাটি অঞ্চলের। মৃত কিশোরের নাম রণি হালদার (১৬)।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, গত রবিবার রাত থেকে নিখোঁজ ছিল রণি। দুদিন ধরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পরেও তার সন্ধান না মেলায় পরিবারের সদস্যরা থানায় গিয়ে নিখোঁজের ডায়েরি করেন। অবশেষে আজ সকালে হঠাৎই নদীর ধারে ওই কিশোরের মৃতদেহ ভেসে ওঠে। খবর পেয়ে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে বহরমপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠাই। সেখানে তার দেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে। রণির পরিবারের সদস্যরা দেহটি শনাক্ত করেছেন।

উদ্ধার হওয়া কিশোরের শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখে খুন বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ। এরপর পরিবারের সদস্যদের অভিযোগে পুলিশ রিন্টু বিশ্বাস নামে রণির এক বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে। ইতিমধ্যেই ধৃত কিশোর পুলিশি জেরার মুখে পড়ে খুনের কথা স্বীকার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, কোনও বিষয়কে কেন্দ্র করে বিবাদের জেরে রিন্টু প্রথমে গলায় ফাঁস লাগিয়ে রণিকে খুন করে। তারপর তার পেটের একাংশ কেটে দেয়। ধৃত জানিয়েছে, রণির দেহ যাতে জলে ভেসে না ওঠে সেই কারণেই সে তার পেটের অংশ কেটে দিয়েছিল। আজ সকালে একটি নৌকার তলায় মৃত কিশোরের মৃতদেহ ভেসে ওঠে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বন্ধ করুন