বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ধরনা, সালিশি সভাতেও কাজ হয়নি, বিয়ের দাবিতে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবতীর
ধরনা, সালিশি সভাতেও কাজ হয়নি, বিয়ের দাবিতে বিষখেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবতীর। ছবিটি প্রতীকী। (HT_PRINT)
ধরনা, সালিশি সভাতেও কাজ হয়নি, বিয়ের দাবিতে বিষখেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবতীর। ছবিটি প্রতীকী। (HT_PRINT)

ধরনা, সালিশি সভাতেও কাজ হয়নি, বিয়ের দাবিতে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবতীর

যুবককে বিয়ে করার দাবিতে কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক যুবতী। জলপাইগুড়ির আলতা ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের খট্টিমারি এলাকার ঘটনা।

যুবককে বিয়ে করার দাবিতে কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক যুবতী। জলপাইগুড়ির আলতা ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের খট্টিমারি এলাকার ঘটনা। এলাকায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ায় এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন যুবতী। তার চিকিৎসা চলছে জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালে।

স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, ওই যুবতীর নাম পিয়ালী রায়। এলাকায় দুর্গাপুজোর সময় জয়দেব রায় নামে এক যুবকের সঙ্গে তার দেখা। তারপরে দু'জনে জড়িয়ে পড়েন প্রণয়ের সম্পর্কে। দু'জনের মধ্যে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হতেই তারা একে অপরকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। অভিযোগ, প্রতিশ্রুতি মতো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জয়দেব তাকে বিয়ে করেনি। তাই বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়িতে ধরনা দেয় যুবতী। টানা ৬ দিন ধরে ছেলের বাড়িতে যুবতী ধরনায় বসেছিলেন। কিন্তু, যুবতীর ধরনায় বসার আগেইে ওই যুবক কালিম্পংয়ে চলে যান। স্থানীয়রা জানান, ওই যুবক পেশায় শ্রমিক। ফলে কর্মসূত্রে তিনি সেখানে চলে গিয়েছিলেন। এদিকে, টানা ৬ দিন ধরে ধরনার পরেও যুবককে না পেয়ে শেষে বাড়ি ফিরে যান যুবতী। সমস্যার সমাধানে গ্রামের মোড়লরা সালিশি সভা ডাকেন। তারপরেও সমস্যার সমাধান হয়নি।

শেষে কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন যুবতী। আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে তাকে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। ক্রমেই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসকরা সেখান থেকে তাকে রেফার করেন জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালে। বর্তমানে সেখানে তার চিকিৎসা চলছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

 

বন্ধ করুন