বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌আমরা তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করছি’‌, শিলিগুড়ি পুরভোট নিয়ে মন্তব্য রোশনের
গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরি

‘‌আমরা তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করছি’‌, শিলিগুড়ি পুরভোট নিয়ে মন্তব্য রোশনের

  • বুধবার গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরি তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁরা থাকবেন বলে আগেই জানিয়েছিলেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং। এবার শিলিগুড়ি পুরসভার নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন জানাল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। বুধবার গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরি তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন। এদিন তিনি বলেন, ‘শিলিগুড়ি পুরসভা নির্বাচনে ৪৭ ওয়ার্ডেই আমরা তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করছি। তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দেওয়ার জন্য শিলিগুড়িবাসীর কাছে আবেদনও জানাচ্ছি।’‌

ঠিক কী বলেছেন রোশন গিরি?‌ এদিন তিনি সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, ‘‌শিলিগুড়ি পুরসভা নির্বাচনে ৪৭ ওয়ার্ডেই আমরা তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করছি। তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দেওয়ার জন্য শিলিগুড়িবাসীর কাছে আবেদনও জানাচ্ছি। তৃণমূল যদি প্রচারের জন্য ডাকে তাহলে গোর্খা অধ্যুষিত এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রচার চালাবে মোর্চা।’‌ তবে শুধু জিটিএ নয় পাহাড়ের চারটি পৌরসভার নির্বাচনেরও দাবি জানাল মোর্চা।

আগে বিজেপিকে সমর্থন করেছিল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। কিন্তু তাতে পাহাড়বাসীর জন্য তাঁরা কাজ করতে পারেননি এবং প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারেননি বলে তাঁদের দাবি। বিমল গুরুংকেও গা–ঢাকা দিয়ে থাকতে হয়েছিল। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের সাহচর্যে আসতেই পাহাড়ে প্রত্যাবর্তন করেন বিমল। তারপর থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে আছেন তাঁরা। এই বিষয়ে রোশন আজ বলেন, ‘বিজেপি মিথ্যার রাজনীতি করে। বিজেপি পাহাড়বাসীকে গত ১০ থেকে ১১ বছর ধরে অন্ধকারে রেখেছে।’

বিজেপি নেতারা সম্প্রতি পাহাড়কে পৃথক রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার কথা বলেছিলেন। যদিও তা হয়নি। এবার পাহাড়ের পুরসভাগুলির নির্বাচনে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বলেও জানিয়েছেন রোশন। তবে নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে তাদের সমর্থন করা হবে। সম্প্রতি তাঁরা তৃণমূল কংগ্রেস নেতা গৌতম দেবের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তারপরই এই সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন