বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > লাইনচ্যুত হয়ে গেল মালগাড়ির ৮টি বগি, একের পর এক ট্রেন বাতিল করল রেল
লাইনচ্যুত হয়ে যায় মালবাহী গাড়ির ৮টি বগি।
লাইনচ্যুত হয়ে যায় মালবাহী গাড়ির ৮টি বগি।

লাইনচ্যুত হয়ে গেল মালগাড়ির ৮টি বগি, একের পর এক ট্রেন বাতিল করল রেল

  • এই পরিস্থিতিতে মালগাড়ি লাইনচ্যুত হয়ে পড়ায় পরিষেবা বিঘ্নিত হয়েছে।

আজ মহাসপ্তমীতে পাঁশকুড়ায় লাইনচ্যুত হয়ে পড়ল মালগাড়ি। রঘুনাথবাড়ি স্টেশনের মুখে লাইনচ্যুত হল মালগাড়ির বেশ কয়েকটি বগি। তার জেরে হলদিয়া–দিঘা রুটে ট্রেন পরিষেবা ব্যাহত হয়ে পড়ে। এখানেই লাইনচ্যুত হয়ে যায় মালবাহী গাড়ির ৮টি বগি। এই বিষযে খড়গপুর রেলের সিনিয়র আধিকারিক গজরাজ সিং জানান, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সময় লাগবে। দুর্গাপুজোর ছুটিতে অনেকেই দিঘার সৈকতে পাড়ি দিয়েছেন। আবার অনেকে ফিরে বাকি পুজো উপভোগ করবেন। এই পরিস্থিতিতে মালগাড়ি লাইনচ্যুত হয়ে পড়ায় পরিষেবা বিঘ্নিত হয়েছে।

রেল সূত্রে খবর, এই ঘটনায় খড়গপুর স্টেশনের পর বাতিল করা হয়েছে আসানসোল–হলদিয়া স্পেশাল এক্সপ্রেস ট্রেন, মেচেদার পর বাতিল করা হয়েছে হাওড়া থেকে দিঘাগামী স্পেশাল এক্সপ্রেস ট্রেন। তাতে আরও চাপে পড়ে গিয়েছেন যাত্রীরা। ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখা হলেও এখন সেখানে পরিষেবা স্বাভাবিক করতে সময় লাগছে। আর বাতিল করা হয়েছে দিঘা–হাওড়া স্পেশাল এক্সপ্রেস।

মালগাড়ি বিপত্তিতে অনেকেই দুর্ভোগে পড়েছেন। বিশেষ করে আজ যাঁরা দিঘা পৌঁছতে চাইছেন। তাঁদের অনেকেই হাওড়া স্টেশনে এসে গালে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। অনেকে আবার খবর জানতে পেরে বাস পথে যেতে চাইছেন। সবমিলিয়ে যাত্রীদের মধ্যে টেনশন শুরু হয়েছে। অনেককেই দেখা গেল অনুসন্ধান কেন্দ্রে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন।

আসলে ২০২০ সালের পুজো সবারই প্রায় বাড়িতেই কেটেছিল। করোনাভাইরাসের জেরে দুর্গাপুজোয় তখন আনন্দ করতে পারেননি সাধারণ মানুষ। তাই এই বছর করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে থাকায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েছেন অনেকেই। কিন্তু বিধি–বাম। মালগাড়ি লাইনচ্যুত হওয়ায় অনেককেই ফিরে যেতে হবে। না হলে অন্য পথ দিয়ে যেতে হবে।

বন্ধ করুন