বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বোরো ধানের মরশুমে সারের আকাল, কালোবাজারি রুখতে অভিযান রাজ্যের
রাজ্যজুড়ে সারের আকাল, কালোবাজারী রুখতে তৎপর প্রশাসন। ছবিটি প্রতীকী সৌজন্যে ফেসবুক।
রাজ্যজুড়ে সারের আকাল, কালোবাজারী রুখতে তৎপর প্রশাসন। ছবিটি প্রতীকী সৌজন্যে ফেসবুক।

বোরো ধানের মরশুমে সারের আকাল, কালোবাজারি রুখতে অভিযান রাজ্যের

  • দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমণ্ডি ব্লকের একাধিক সারের দোকানে অভিযান চালান সরকারি আধিকারিকরা।

রাজ্যে শীতকালীন সবজি-সহ আলু চাষ শুরু হয়ে গিয়েছে। আর কয়েক দিনের মধ্যে শুরু হয়ে যাবে বোরো ধানের চাষ। কিন্তু ডিএপি, পটাশের মত প্রয়োজনীয় সারের আকাল দেখা দিয়েছে রাজ্যে। আর তা নিয়েই সারের কালোবাজারি শুরু হয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। নির্দিষ্ট মূল্যের চেয়ে সারের দাম বেশি নেওয়া হচ্ছে চাষিদের কাছ থেকে। এ নিয়ে গত শুক্রবার কৃষি দফতরের আধিকারিকরা সারের ডিলারদের সঙ্গে বৈঠক করে কালোবাজারি নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। কিন্তু, তারপরেও সারের কালোবাজারি চলছে বলে অভিযোগ।

এই কালোবাজারি রুখতে ইতিমধ্যেই দোকানগুলিতে দিতে শুরু করেছেন আধিকারিকরা। শনিবার দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমণ্ডি ব্লকের একাধিক সারের দোকানে অভিযান চালান সরকারি আধিকারিকরা। সেখানে সারের দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগে এক ব্যবসায়ীকে শোকজ করা হয়েছে বলে প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে। ব্লকে বিভিন্ন সারের দোকানে কৃষি দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে হানা দেন এলাকার জয়েন্ট বিডিও রোহন বিশ্বকর্মা। দোকানে দোকানে গিয়ে তাঁরা সারের কাজগপত্র খতিয়ে দেখেন। সার কত মূল্যে কেনা হয়েছে এবং কত দামে কৃষকদের বিক্রি করা হয়েছে সে সমস্ত নথি খতিয়ে দেখেন আধিকারিকরা। সেখানে একজন ব্যবসায়ীর সারের মূল্যে গরমিল পাওয়ায় তাঁকে শোকজ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

যদিও ব্যবসায়ীদের কথায়, এখন রাজ্যে এরকম সার পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাইরে থেকে আনতে হচ্ছে। সেক্ষেত্রে বেশি দাম দিতে হচ্ছে তাঁদের। এছাড়া ক্যারিং কস্ট লাগার জন্য কৃষকদের কাছ থেকে বেশি দাম নেওয়া হচ্ছে। এখানে তাঁদের কোনও হাত নেই। যদিও সরকারি আধিকারিকদের বক্তব্য, সারের একটি নির্দিষ্ট দাম বেঁধে দেওয়া রয়েছে। তার বেশি দাম কৃষকদের কাছ থেকে নেওয়া যাবে না।

সারের দাম বেশি নেওয়ার কারণে কয়েকদিন আগে বহরমপুর এক সার বিক্রেতাকেও শোকজ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, সারের কালোবাজারি রুখতে ডিলারদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন কৃষি দফতরের আধিকারিকরা। গত শুক্রবার বেআইনিভাবে সার মজুত এবং কোনভাবেই যে নির্দিষ্ট মূল্যের চেয়ে বেশি দাম কৃষকদের কাছ থেকে নেওয়া যাবে না সে বিষয়ে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে ডিলারদের। এরপর রবিবার এ নিয়ে ডিলারদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন কৃষি দফতরের আধিকারিকরা। সেখানে ডিলারদের সার সরবরাহের চেন জানতে চাওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন