বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বেলপাহাড়িতে ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, মাওবাদী যোগ দেখছেন গ্রামবাসীরা
বেলপাহাড়িতে ব্য়বসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, মাওবাদী যোগ দেখছেন গ্রামবাসীরা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য গেট ইমেজস)
বেলপাহাড়িতে ব্য়বসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, মাওবাদী যোগ দেখছেন গ্রামবাসীরা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য গেট ইমেজস)

বেলপাহাড়িতে ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, মাওবাদী যোগ দেখছেন গ্রামবাসীরা

  • ওই ব্যবসায়ীর দাবি, গত ২৭ জুলাই ‘চাঁদা’ চেয়ে বাড়িতে তাঁর বাড়িতে একটি চিঠি এসেছিল।

বেলপাহাড়িতে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনের গুলিতে আহত হলেন এক ব্যবসায়ী। গুলি থেকে বাঁচতে গিয়ে ছাদ থেকে ঝাঁপ মেরে আহত হয়েছেন তাঁর স্ত্রীও। বিষয়টি নিয়ে জেলা পুলিশের তরফে কোনও মন্তব্য না করা হলেও গ্রামবাসীদের দাবি, ঘটনায় মাওবাদীরা জড়িত আছে।

‘আনন্দবাজার’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, শিমূলপাল পঞ্চায়েতের পচাপানি এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ন'টা নাগাদ বিদ্যুৎ দাসের বাড়ির সামনে হাজির হয় কয়েকজন অজ্ঞাতপরিচয় লোক। তাঁর নাম ধরে ডাকা হয়। কিন্তু সন্দেহ হওয়ায় ছাদের উপরে উঠে যান বিদ্যুৎ ও তাঁর স্ত্রী মীরা। সেই সময় তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় সেই বন্দুকবাজরা। আতঙ্কে ছাদ থেকে ঝাঁপ মারেন মীরা। এলাকায় সম্পন্ন ব্যবসীয় হিসেবে পরিচিত বিদ্যুৎকে শাসিয়ে যায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিরা।

বিদ্যুতের দাবি, গত ২৭ জুলাই ‘চাঁদা’ চেয়ে বাড়িতে তাঁর বাড়িতে একটি চিঠি এসেছিল। মাওবাদী নেতা মদন মাহাতোর স্বাক্ষর করা সেই চিঠিতে দু'লাখ টাকা দাবি করা হয়েছিল। সেই ‘নির্দেশ’ না মানলে ‘চরম শাস্তি’-র হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল। বিষয়টি পুলিশকেও জানানো হয়েছিল। কিন্তু চিঠি পাঠানোর ঠিক একমাসের মাথায় হামলার ঘটনায় মাওবাদীদের দিকেই সন্দেহের আঙুল তুলেছেন বিদ্যুৎ ও গ্রামবাসীরা।

বিষয়টি নিয়ে পুলিশের তরফে মুখ খোলা হয়নি। তবে বেলপাহাড়ি থানা এবং বাঁশপাহাড়ি পুলিশ চৌকির তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকদের মধ্যে একজনকে উদ্ধৃত করে ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মাওবাদীদের নামে হুমকি চিঠির আসার বিষয়টি জানতে পেরে কোনও স্থানীয় দুষ্কৃতী দল সেই হামলা চালিয়েছে কিনা, সেই দিকটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি একটা সময় এলাকার অনেকের হাতে আগে অস্ত্র এসেছিল। কারোর কারোর কাছে তা এখনও রয়ে গিয়েছে। ফলে সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওই আধিকারিক।

বন্ধ করুন