বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > স্ত্রীর সঙ্গে বেশ কিছুদিন ধরে চলছিল বিবাদ, উদ্ধার হল পার্শ্বশিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ
প্রতীকি ছবি।

স্ত্রীর সঙ্গে বেশ কিছুদিন ধরে চলছিল বিবাদ, উদ্ধার হল পার্শ্বশিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ

  • ফোনে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে বলতে দোতলায় চলে যান। বেশ কিছুক্ষণ ধরে সাড়া না পেয়ে গোপালবাবুর ভাই দোতলায় গিয়ে দেখেন চিলেকোঠায় দাদা গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

এক পার্শ্ব শিক্ষকের আত্মহত্যাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল মুর্শিদাবাদের খড়গ্রামে। নিহত ব্যক্তির নাম গোপালচন্দ্র দাস। শুক্রবার রাতে নিজের বাড়ির চিলেকোঠায় তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। দাম্পত্যকলহের জেরে আত্মহত্যা বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, স্ত্রীর সঙ্গে বিবাদ চলছিল গোপালবাবু। যার জেরে সম্প্রতি বাপের বাড়ি চলে যান স্ত্রী। গরমের ছুটিতে স্কুলও বন্ধ। বিকেলে বন্ধুদের সঙ্গে গল্পগুজব করে রাতে বাড়ি ফেরেন তিনি। এর পর ফোনে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে বলতে দোতলায় চলে যান। বেশ কিছুক্ষণ ধরে সাড়া না পেয়ে গোপালবাবুর ভাই দোতলায় গিয়ে দেখেন চিলেকোঠায় দাদা গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। দেহ উদ্ধার করে খড়গ্রাম থানার পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান আত্মঘাতী হয়েছেন গোপালবাবু। কী কারণে গোপালবাবু আত্মঘাতী হলেন তা জানার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা। এখনো পর্যন্ত কোনও সুইসাইড নোট উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। মৃত্যুর কারণ জানতে তাঁর ফোনটি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তাঁর স্ত্রী ও পরিবারের অন্য সদস্যদের।

 

বন্ধ করুন