বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিশ্বকর্মা পুজো : কারিগরীর দেবতার আরাধনার দিন প্রিয়জনদের পাঠান শুভেচ্ছাবার্তা

বিশ্বকর্মা পুজো : কারিগরীর দেবতার আরাধনার দিন প্রিয়জনদের পাঠান শুভেচ্ছাবার্তা

প্রতি বছর ভাদ্র মাসের সংক্রান্তির দিন কারিগরীর দেবতার আরাধনা করা হয়। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

কী কী শুভেচ্ছা জানাবেন, জেনে নিন।

আজ কারিগরীর দেবতার আরাধনার দিন। এদিন কলকারখানা, অফিস ও অন্যান্য নির্মাণ সংস্থায় বিশ্বকর্মা পুজো করা হয়। বিশ্বকর্মা পুজো উপলক্ষ্যে প্রিয়জনদের জানান শুভেচ্ছা -

১) শুভ বিশ্বকর্মা পুজো।

২) সবাইকে জানাই বিশ্বকর্মা পুজোর শুভেচ্ছা।

৩) সকল শ্রমজীবী মানুষকে বিশ্বকর্মা পুজোর আন্তরিক শুভেচ্ছা।

৪) শুভ বিশ্বকর্মা পুজো। আপনার জীবন সাফল্যে ভরে উঠবে এই বিশ্বকর্মা পুজোয়।

৫) বিশ্বকর্মা পুজোর আন্তরিক প্রীতি এবং শুভেচ্ছা।

৬) ‘ওম আধার শক্তপে নমঃ’, ‘ওম কূমিয় নমঃ’, ‘ওম অনন্তম নমঃ’ ‘পৃথিবৈ নমঃ’ - শুভ বিশ্বকর্মা পুজো।

প্রতি বছর ভাদ্র মাসের সংক্রান্তির দিন কারিগরীর দেবতার আরাধনা করা হয়। যে ভাদ্র মাসের সংক্রান্তিকে কন্যা সংক্রান্তি বলা হয়ে থাকে। প্রচলিত মত অনুযায়ী, কন্যা সংক্রান্তির দিন জন্মগ্রহণ করেছিলেন শিল্প-স্থাপত্য, বিভিন্ন নির্মাণের দেবতা বিশ্বকর্মা। 

বিশ্বকর্মা পুজোর নির্ঘণ্ট : 

হিন্দুশাস্ত্র অনুয়াযী, চন্দ্রের গতির উপর নির্ভর করে দেবদেবীর আরাধনার দিন নির্ধারিত হয়। তিথি এবং পুজোর সময় নির্ধারিত হয় সেই চন্দ্রের গতির উপর। কিন্তু সূর্যের গতির উপর ভিত্তি করে বিশ্বকর্মা পুজো নির্ধারিত হয়। ফলে দুর্গাপুজো-সহ অন্যান্য পুজোর মতো বিশ্বকর্মা পুজো নির্দিষ্ট কোনও তিথি মেনে হয় না। প্রতি বছরই ভাদ্র মাসের সংক্রান্তির দিন দেবশিল্পী বিশ্বকর্মার আরাধনা করা হয়ে থাকে। সারাদিনই পুজো হয়। তাও কিছু শুভ সময়, মাহেন্দ্র যোগ আছে। তা দেখে নিন একনজরে -

কন্যা সংক্রান্তির সূচনা - রাত ১টা ২৯ মিনিটে।

শুক্ল পক্ষ একাদশী - সকাল ৮টা ৩৪ মিনিট ২৫ সেকেন্ড পর্যন্ত।

বিশ্বকর্মা পুজোর সর্বার্থ সিদ্ধি যোগ শুরু - সকাল ৬টা ৭ মিনিট থেকে।

বিশ্বকর্মা পুজোর মাহেন্দ্র যোগ শুরু- রাত ১০টা ২০ মিনিট ১৫ সেকেন্ড থেকে।

সমাপ্তি- ১১ টা ৭ মিনিট ৩২ সেকেন্ডে।

বন্ধ করুন