বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হাতিশালায় তৃণমূল - ISF সংঘর্ষে পড়ল বোমা, চলল গুলি, পুড়ল তৃণমূলের পার্টি অফিস

হাতিশালায় তৃণমূল - ISF সংঘর্ষে পড়ল বোমা, চলল গুলি, পুড়ল তৃণমূলের পার্টি অফিস

হাতিশালায় তৃণমূলের পার্টি অফিসে আগুন ধরানোর অভিযোগ ISF-এর বিরুদ্ধে।

ISF-এর দাবি, শনিবার দলে প্রতিষ্ঠা দিবসে ট্রাকে করে ধর্মতলায় দলের সমাবেশে যোগদান করতে যাচ্ছিলেন দলের কর্মী সমর্থকরা। তখন হাতিশালা মোড়ে গাড়ি থেকে নেমে দলীয় পতাকা বাঁধতে যান কর্মীরা। পতাকা বাঁধতে বাধা দেয় সেখানে থাকা তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

তৃণমূল – আইএসএফ সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল ভাঙড়ের হাতিশালা এলাকা। শনিবার সকালে সংঘর্ষ চলাকালীন গুলি ও বোমা ছোড়া হয় বলে বলে অভিযোগ। এমনকী তৃণমূলের একটি পার্টি অফিস জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আইএসএফের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় এলাকায় মোতায়েন হয়েছে লেদার কমপ্লেক্স থানার বিশাল বাহিনী।

ISF-এর দাবি, শনিবার দলে প্রতিষ্ঠা দিবসে ট্রাকে করে ধর্মতলায় দলের সমাবেশে যোগদান করতে যাচ্ছিলেন দলের কর্মী সমর্থকরা। তখন হাতিশালা মোড়ে গাড়ি থেকে নেমে দলীয় পতাকা বাঁধতে যান কর্মীরা। পতাকা বাঁধতে বাধা দেয় সেখানে থাকা তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। এর জেরেই উত্তেজনা ছড়ায়। একের পর এক গাড়ি থেকে নেমে পড়ে ISF সমর্থকরা। তৃণমূল সমর্থকদের লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে শুরু করে তারা। সঙ্গে গুলি ও বোমাও ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। প্রবল হামলার মুখে পড়ে পিছু হঠেন তৃণমূল সমর্থকরা। তখন স্থানীয় একটি তৃণমূল পার্টি অফিসে অগুন ধরিয়ে দেন ISF কর্মীরা। এই ঘটনায় দুপক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ১ তৃণমূলকর্মীর মাথা ফেটেছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশ।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে হাতিশালা মোড়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় লেদার কমপ্লেক্স থানার বিশাল বাহিনী। দীর্ঘ চেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে তারা।

এই ঘটনা নিয়ে ভাঙড়ের বিধায়ক নওসাদ সিদ্দিকি বলেন, পুলিশ চাইলে এই সংঘর্ষের ঘটনা এড়াতে পারত। আমাদের একের পর এক গাড়িতে তৃণমূল হামলা চালিয়েছে। তখন পুলিশ চুপ করে দাঁড়িয়ে ছিল।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup 

বন্ধ করুন