বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হিঙ্গলগঞ্জ কাণ্ডে গ্রেফতার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা, গোটা গ্রামে আতঙ্কের পরিবেশ
হিঙ্গলগঞ্জে ভয়াবহ বিস্ফোরণ (সংগৃহীত)

হিঙ্গলগঞ্জ কাণ্ডে গ্রেফতার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা, গোটা গ্রামে আতঙ্কের পরিবেশ

  • সম্প্রতি গ্রামের একটি পুকুরের ঘাট সংস্কার হচ্ছিল। তা নিয়ে বিবাদ বেঁধেছিল দুই ঠিকাদার সংস্থার মধ্যে। এই বিবাদের জেরেই বদলা নিতে বোমা তৈরির সরঞ্জাম আনা হয়েছিল। এই বিষয়ে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। কারা এই ঘটনায় জড়িত?‌ তাদের হদিশ এখনও পাওয়া যায়নি।

বসিরহাটের হিঙ্গলগঞ্জে যে বিস্ফোরণ হয়েছে তাতে একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে এই ভয়াবহ বিস্ফোরণে সেখানে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এই ঘটনায় সান্ডেলেবিল গ্রামের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ইকবাল আহমেদ ওরফে মুকুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পঞ্চায়েতের তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্য আরুফা বিবির স্বামী এই ইকবাল। বাঁকড়া গ্রামের আফসার গাজির বাড়িতে বোমা বাঁধা হচ্ছিল বৃহস্পতিবার রাতে। সেখানে ঘটে পরপর বিস্ফোরণ। মৃত্যু হয়েছে আতাউর সর্দার নামে যুবকের। তাঁর দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ জানা গিয়েছে, বোমা বিস্ফোরণের পর বাড়ির সবাই পলাতক। সুজন গাজির হাত উড়ে গিয়েছে। অনেকে আহত। কিন্তু কোনও খোঁজ মিলছে না তাঁদেরও। এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ। ঘরের মধ্যে বোমা বাঁধা চলছিল। বোমার মশলাও মজুদ ছিল ওই ঘরেই। এখানেই পরপর আরও কয়েকটি বিস্ফোরণ হয়।

কেন বোমা তৈরি হচ্ছিল?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, সম্প্রতি গ্রামের একটি পুকুরের ঘাট সংস্কার হচ্ছিল। তা নিয়ে বিবাদ বেঁধেছিল দুই ঠিকাদার সংস্থার মধ্যে। এই বিবাদের জেরেই বদলা নিতে বোমা তৈরির সরঞ্জাম আনা হয়েছিল। এই বিষয়ে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। কারা এই ঘটনায় জড়িত?‌ তাদের হদিশ এখনও পাওয়া যায়নি।

পুলিশ সূত্রে খবর, বিস্ফোরণের পরে আতঙ্কে পড়ে যান গ্রামবাসীরা। আর্তনাদ শোনা যাচ্ছিল সেখান থেকে। ছিন্নভিন্ন দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। হাত উড়ে গিয়েছে সুজন গাজি নামে যুবকের। তবে সে আত্মগোপন করেছে। গোটা এলাকা ফাঁকা হয়ে গিয়েছে। এলাকায় মজুত করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। আর কোথাও বোমা রয়েছে কিনা চলছে তল্লাশি।

বন্ধ করুন