বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গায়ের রং ‘কালো’, তাই গৃবধূকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে
নিহত বধূ তুহিনা মোল্লা
নিহত বধূ তুহিনা মোল্লা

গায়ের রং ‘কালো’, তাই গৃবধূকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

  • মৃত বধূর পরিবারের অভিযোগ, তাঁকে পিটিয়ে মেরেছে স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। এই মর্মে কুলতলি থানায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করেছেন তাঁরা।

গায়ের রং ‘কালো’, তাই গৃবধূকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। ঘটনা দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলির গোপালগঞ্জের। মৃত তুহিনা মোল্লা (২০)-র বাপের বাড়ির তরফে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা ফেরার। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বছর দুয়েক আগে কুলতলির কুন্দখালি গ্রামের বাসিন্দা তুহিনার সঙ্গে সম্মন্ধ করে বিয়ে হয় গোপালগঞ্জের বাসিন্দা সাগির হোসেনের। বিয়েতে তুহিনার বাড়ি থেকে সাধ্যমতো পণও দেওয়া হয়। বিয়ের পর প্রথম কিছুদিন সব ঠিকঠাক থাকলেও কিছুদিন পর শুরু হয় শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার। 

অভিযোগ, ‘গায়ের রং কালো’ এই দাবি করে তুহিনাকে মারধর শুরু করে তাঁর স্বামী সাগির। অত্যাচার চালাতে থাকে তার শাশুড়ি-ননদও। রবিবার সকালে শ্বশুরবাড়ি থেকে বধূর দেহ উদ্ধার হয়। খবর যায় কুলতলি থানায়। পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। 

মৃত বধূর পরিবারের অভিযোগ, তাঁকে পিটিয়ে মেরেছে স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। এই মর্মে কুলতলি থানায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করেছেন তাঁরা। 

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কুলতলি থানার পুলিশ। বধূর মৃত্যু কী ভাবে হয়েছে তা জানতে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষা করছেন তাঁরা। ঘটনার পর থেকেই ফেরার অভিযুক্তরা। তাদের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। 

 

বন্ধ করুন