বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বন্ধ বাগডোগরা বিমানবন্দর, উত্তরবঙ্গে ভলভো বাসের ভাড়া শুনলে অবাক হবেন!
ভলভো বাস। প্রতীকী ছবি।

বন্ধ বাগডোগরা বিমানবন্দর, উত্তরবঙ্গে ভলভো বাসের ভাড়া শুনলে অবাক হবেন!

  • বেসরকারি সংস্থাগুলো বাজিমাত করে নিচ্ছে। নিজদের ইচ্ছেমতো বাড়িয়ে দিয়েছে টিকিটের দাম।

১১ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দর সংস্কারের কাজ। সেই কারণে এই বিমানবন্দরে আপাতত বন্ধ রয়েছে উড়ান পরিষেবা। বন্ধ থাকবে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত। তারপর থেকে হয়ত উড়ান পরিষেবা স্বাভাবিক হতে পারে। কিন্তু, বন্ধ থাকার এই সময়টা সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে ট্রেন চালু করা হলেও তাতে টিকিট পাচ্ছেন না অনেকেই। আবার সরকারি সংস্থা উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার বাসের সংখ্যা অনেক কম হওয়ায় এখন ভরসা বেসরকারি বাস। আর এই সুযোগে বেসরকারি সংস্থাগুলো বাজিমাত করে নিচ্ছে। নিজদের ইচ্ছেমতো বাড়িয়ে দিয়েছে টিকিটের দাম।

বেসরকারি বাসের ভাড়া যেভাবে বেড়েছে তাতে চোখ কপালে অধিকাংশ যাত্রীর। তবে উপায় না থাকায় অনেকেই আবার সেই ভাড়াতেই বেসরকারি বাসে যাতায়াত করছেন। যাত্রীদের কথায়, সাধারণ সময় উত্তরবঙ্গে ভলভো বাসের ভাড়া ১১০০ টাকা থাকে। সেই ভাড়া এখন কাউন্টার থেকে কাটলে ১৮০০ টাকায় মিলছে, আবার অনলাইনে টিকিট কাটলে নেওয়া হচ্ছে ২৫০০ টাকা। আবার ভলভো স্লিপারের ক্ষেত্রে সেই ভাড়া আরও বেশি। আগে যেখানে সাধারণ সময়ে ১৪০০ টাকা ভাড়া থাকে এখন কাউন্টার থেকে কাটলে এর ভাড়া ২০০০ টাকা, আবার অনলাইনে কাটলে ৩৭০০ থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে ।

১১ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দর সংস্কারের কাজ। সেই কারণে এই বিমানবন্দরে আপাতত বন্ধ রয়েছে উড়ান পরিষেবা। বন্ধ থাকবে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত। তারপর থেকে হয়ত উড়ান পরিষেবা স্বাভাবিক হতে পারে। কিন্তু, বন্ধ থাকার এই সময়টা সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে ট্রেন চালু করা হলেও তাতে টিকিট পাচ্ছেন না অনেকেই। আবার সরকারি সংস্থা উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার বাসের সংখ্যা অনেক কম হওয়ায় এখন ভরসা বেসরকারি বাস। আর এই সুযোগে বেসরকারি সংস্থাগুলো বাজিমাত করে নিচ্ছে। নিজদের ইচ্ছেমতো বাড়িয়ে দিয়েছে টিকিটের দাম।

বেসরকারি বাসের ভাড়া যেভাবে বেড়েছে তাতে চোখ কপালে অধিকাংশ যাত্রীর। তবে উপায় না থাকায় অনেকেই আবার সেই ভাড়াতেই বেসরকারি বাসে যাতায়াত করছেন। যাত্রীদের কথায়, সাধারণ সময় উত্তরবঙ্গে ভলভো বাসের ভাড়া ১১০০ টাকা থাকে। সেই ভাড়া এখন কাউন্টার থেকে কাটলে ১৮০০ টাকায় মিলছে, আবার অনলাইনে টিকিট কাটলে নেওয়া হচ্ছে ২৫০০ টাকা। আবার ভলভো স্লিপারের ক্ষেত্রে সেই ভাড়া আরও বেশি। আগে যেখানে সাধারণ সময়ে ১৪০০ টাকা ভাড়া থাকে এখন কাউন্টার থেকে কাটলে এর ভাড়া ২০০০ টাকা, আবার অনলাইনে কাটলে ৩৭০০ থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে ।

আর এতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের। বিশেষ করে যারা চিকিৎসার জন্য যাতায়াত করছেন তাদের পক্ষে আরও সমস্যা দেখা দিচ্ছে। এক যাত্রী কথায়, তিনি চিকিৎসার জন্য বেঙ্গালুরু গিয়েছিলেন। বিমানে করে কলকাতার ফিরে আসেন। তার পরিকল্পনা ছিল বিমানে করে বাগডোগরা যাওয়ার। কিন্তু, বাধ্য হয়ে তাকে বাসে করে যেতে হচ্ছে। কারণ ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাসই একমাত্র ভরসা। তার কথায় বাসের ভাড়া একেবারে বিমানের মতো। যদিও যাত্রীদের সুবিধায় অতিরিক্ত বাস চলাচল উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থা।

বন্ধ করুন