বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > স্বামীর আত্মহত্যার ভিডিও রেকর্ডিং করলেন স্ত্রী, নেপথ্যে উঠে এলো পরকীয়া
আত্মঘাতী। ছবিটি প্রতীকী।
আত্মঘাতী। ছবিটি প্রতীকী।

স্বামীর আত্মহত্যার ভিডিও রেকর্ডিং করলেন স্ত্রী, নেপথ্যে উঠে এলো পরকীয়া

  • এই অশান্তি থেকে মুক্তি পেতে অবশেষে চরম সিদ্ধান্ত নিলেন ওই স্বামী।

স্ত্রীয়ের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। এই অভিযোগ ছিল স্বামীর। আর তা নিয়ে নিত্য অশান্তি সংসারে লেগেই থাকত। পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছিল বলেই অভিযোগ। এরপর এই অশান্তি থেকে মুক্তি পেতে অবশেষে চরম সিদ্ধান্ত নিলেন ওই স্বামী। আত্মঘাতী হলেন বাড়িতে। এই প্রচেষ্টা যখন চূড়ান্ত মুহূর্তে তখন কিন্তু তাঁকে আটকালেন না স্ত্রী। বরং গোটা ঘটনার ভিডিও রেকর্ড করার অভিযোগ উঠল স্ত্রীয়ের বিরুদ্ধে। রোমহর্ষক এই ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বালি থানা এলাকায়। আর তাই আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রীকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বালি থানার অন্তর্গত বাদামতলা এলাকার বাসিন্দা অমন সাউ। তিনি পেশায় বস্ত্র ব্যবসায়ী। পাঁচ বছর আগে অমন সাউয়ের সঙ্গে প্রেম চলে নেহা শুক্লার। এমনকী নেহা বাড়ির অমতেই গত বছর ডিসেম্বর মাসে বিয়ে করেন লিলুয়ার নেহা শুক্লা। কিন্তু আর একটা বছর ঘুরল না। তার মধ্যেই সম্পর্কে চিড় ধরতে শুরু করে। উত্তরপাড়ার এক যুবকের সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে তৈরি হয় নেহার বলে স্বামীর অভিযোগ ছিল। অভিযোগ, এই বিষয়টি নিয়ে অমনের কাছ থেকে পার্টি করার জন্য জোর করে টাকা চাইত নেহা। আর তা নিয়ে দাম্পত্য অশান্তিও চরমে উঠতে থাকে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে, কাউকে কিছু না জানিয়ে গত মার্চ মাসে প্রেমিকের সঙ্গে দিল্লিতে ঘুরে আসেন নেহা। আর ফিরে এসে স্বামীকে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য চাপ দিতে থাকেন।

জানা গিয়েছে, এই অশান্তির আবহে নেহার মোবাইলে প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি দেখে ফেলেন অমন। আর তা নিয়ে ৮ এপ্রিল অশান্তি চরমে উঠে দু’‌পক্ষের মধ্যে। বাধ্য হয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন অমন। অভিযোগ, তখন স্বামীকে না আটকে গোটা ঘটনার ভিডিও রেকর্ডিং করেন নেহা। তারপর বাড়ি ছেড়ে পালাবার চেষ্টা করেন নেহা। তখন শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা নেহার মোবাইল কেড়ে নেন এবং পুলিশে খবর দিয়ে তাদের কাছে জমা দেন। বালি থানায় নেহার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন অমনের বাবা। তারপর সোমবার বেশি রাতে নেহাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বন্ধ করুন