বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বধূর দেহ উদ্ধারের পর স্বামীকে গাছে বেঁধে উত্তম মধ্যম দিলেন প্রতিবেশীরা

বধূর দেহ উদ্ধারের পর স্বামীকে গাছে বেঁধে উত্তম মধ্যম দিলেন প্রতিবেশীরা

অভিযুক্ত স্বামীকে গাছে বেঁধে চলছে মারধর।

এদিন সকালে বাড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় পূজাদেবীকে। ১০ বছর আগে পেশায় গাড়িচালক সুনীলবাবুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই লাগাতার অত্যাচার চালাত শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

বধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল দক্ষিণ ২৪ পরগনার নরেন্দ্রপুরের জগদীশপুরে। মৃত বধূর নাম পূজা শর্মা। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে স্বামী সুনীল শর্মাকে গাছে বেঁধে ব্যাপক মারধর করেন স্থানীয়রা।

এদিন সকালে বাড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় পূজাদেবীকে। ১০ বছর আগে পেশায় গাড়িচালক সুনীলবাবুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই লাগাতার অত্যাচার চালাত শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। পূজাদেবীর বাপের বাড়ি শিলিগুড়িতে। অত দূরে বাড়ি হওয়ায় বাপের বাড়ির লোকেরাও সব সময় তাঁর পাশে দাঁড়াতে পারত না।

স্থানীয়দের অভিযোগ, পূজাদেবীকে নির্যাতনের পর খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দিয়েছেন স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। এদিন দেহ উদ্ধারের পর অভিযুক্ত সুনীল শর্মাকে বাড়ি থেকে টেনে বার করেন প্রতিবেশীরা। এর পর একটি গাছে বেঁধে চলে ব্যাপক মারধর। নাগাড়ে চলে লাথি ঘুসি। লাঠিসোটা নিয়ে চড়াও হন স্থানীয় মহিলারাও।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ। দেহ উদ্ধারের পাশাপাশি অভিযুক্ত স্বামীকে আটক করে নিয়ে যায় তারা। স্বামীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ করেছেন নিহত বধূর বাপের বাড়ির সদস্যরাও। অভিযুক্তের শাস্তি দাবি করেছেন তাঁরা।

 

বন্ধ করুন