বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > AI নির্ভর সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মাপার যন্ত্র বানালেন খড়্গপুর IIT-র গবেষকরা
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

AI নির্ভর সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মাপার যন্ত্র বানালেন খড়্গপুর IIT-র গবেষকরা

  • গবেষকদলের তরফে জানানো হয়েছে, ‘স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশ মতো সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের পরিমাপ জানানো হয়েছে যন্ত্রটিকে। সেই দূরত্ব কোথাও মানা না হলেই তা জানিয়ে দেবে এই যন্ত্র।’

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মানা হচ্ছে কি না তার ওপর নজরদারির জন্য অত্যাধুনিক যন্ত্র তৈরি করলেন IIT খড়্গপুরের ২ বাঙালি গবেষক। কোথাও সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মানা না হলেই বাজতে থাকবে যন্ত্রের অ্যালার্ম। সঙ্গে সঙ্গে সেখানকার ছবি পৌঁছে যাবে পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে। 

করোনা রুখতে গোটা বিশ্বের একমাত্র হাতিয়ার সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং। কিন্তু ভারতের মতো ঘনজনবসতিপূর্ণ দেশে তা বজায় রাখা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং বিষয়। প্রযুক্তি দিয়ে সেই চ্যালেঞ্জ জয় করতে নতুন যন্ত্রের উদ্ভাবন করলেন খড়্গপুর আইআইটির গবেষকরা। 

আইআইটির ২ বাঙালি গবেষক, দেবাশিস চক্রবর্তী ও আদিত্য বন্দ্যোপাধ্যায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রযুক্তি ব্যবহার করে বানিয়েছেন এই যন্ত্র। যা তৈরি করতে খরচ হয়েছে সামান্যই। এই যন্ত্রের মাধ্যমে বাজার – রাস্তার মতো প্রকাশ্য স্থানে সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মানা হচ্ছে কি না তা অফিসে বসেই জানতে পারবেন সরকারি আধিকারিকরা। আর কোথাও সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং লঙ্ঘিত হলে যন্ত্রে বেজে উঠবে সাইরেন। সেই জায়গায় ছবি চলে যাবে পুলিশের কাছে।

গবেষকদলের তরফে জানানো হয়েছে, ‘স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশ মতো সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের পরিমাপ জানানো হয়েছে যন্ত্রটিকে। সেই দূরত্ব কোথাও মানা না হলেই তা জানিয়ে দেবে এই যন্ত্র।’

করোনাভাইরাসের জেরে বিশ্বজোড়া লকডাউনের মধ্যে ভারতবাসীদের আত্মনির্ভর হওয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীর সেই নির্দেশ মেনেই সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ে স্বনির্ভর হওয়ার লক্ষ্যে প্রযুক্তিনির্ভর এই যন্ত্র বানিয়েছেন খড়্গপুর আইআইটির গবেষকরা। 

 

বন্ধ করুন