বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আমার বাড়িতে তো পদ্ম ফুটবেই, হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটেও ফোটাবো: শুভেন্দু অধিকারী
শুভেন্দু অধিকারী। ফাইল ছবি
শুভেন্দু অধিকারী। ফাইল ছবি

আমার বাড়িতে তো পদ্ম ফুটবেই, হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটেও ফোটাবো: শুভেন্দু অধিকারী

  • শুভেন্দু এদিন বলেন, ‘মাননীয় ভাইপো বলেছেন, তুমি পদ্মফুল করছো। তোমার বাড়িতে জোড়াফুল রয়েছে। ওই বাড়িতে থাকতে লজ্জা করে না? বাবুসোনা, এখনো তো বাসন্তী পুজো, রামনবমি আসেনি। সবে তো পদ্মফুলের কুঁড়িটা ফুটেছে।

উত্তর ২৪ পরগনার খড়দায় বিজেপির সভা থেকে চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন দলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী। এদিন তাঁর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেন তিনি। সঙ্গে হুঙ্কার ছাড়েন, শুধু তাঁর বাড়িতে নয়, হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটেও পদ্ম ফোটাবেন তিনি। 

শুভেন্দু এদিন বলেন, ‘মাননীয় ভাইপো বলেছেন, তুমি পদ্মফুল করছো। তোমার বাড়িতে জোড়াফুল রয়েছে। ওই বাড়িতে থাকতে লজ্জা করে না? বাবুসোনা, এখনো তো বাসন্তী পুজো, রামনবমি আসেনি। সবে তো পদ্মফুলের কুঁড়িটা ফুটেছে। রামনবমি আসছে। আমার বাড়ির লোকেরা পদ্ম ফোটাবে’। 

এর পরই নাম না করে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারে পদ্ম ফোটানোর চ্যালেঞ্জ ছোড়েন তিনি। বলেন, ‘আর শুধু আমার বাড়ির লোক নয়। তোমার বাড়ির ভিতরেও ঢুকবো। কাশ্মীরে যখন পাক জঙ্গিরা ঢুকে আমাদের জওয়ানদের মারল তখন মোদীজি বলেছিলেন, অন্দর ঘুসকর মারেঙ্গে। আমরাও হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটে ঢুকে পদ্ম ফোটাবো। নিশ্চিন্ত থাকো’।

সঙ্গে তৃণমূল নেতাদেরও এদিন চ্যালেঞ্জ ছোড়েন। বলেন, ‘ওরা বলছে আঞ্চলিক দল করলে না কেন? দল করলে তোদের খুব সুবিধা হতো না? ৩ – ৫ শতাংশ সরকারবিরোধী ভোট কেটে নিতাম। আমার লড়াই তো আপনাদের ২ জনের বিরুদ্ধে।’

এদিন আগাগোড়াই শুভেন্দুর স্বর ছিল চড়া। ভাইপো তো বটেই, সৌগত রায় থেকে প্রশান্ত কিশোর। এমনকী বারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মাকেও ছাড়েননি তিনি। এদিন শুভেন্দুর কর্মসূচিতে মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

 

বন্ধ করুন