বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সেলফি তুলেও পোস্ট করার উপায় নেই, নেট বিভ্রাট দিঘায়, মন খারাপ পর্যটকদের
 দিঘায় জলোচ্ছ্বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
 দিঘায় জলোচ্ছ্বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

সেলফি তুলেও পোস্ট করার উপায় নেই, নেট বিভ্রাট দিঘায়, মন খারাপ পর্যটকদের

  • পর্যটকদের দাবি বহু চেষ্টা করেও ছবি পোস্ট করা যাচ্ছে না। বিচে ঘুরে বেড়িয়ে তারপর হোটেলে বসে একটু ছবি পোস্ট করার সুযোগই মিলছে না।

দিঘায় বেড়াতে গিয়ে সেলফি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার মজাই আলাদা। এরপরই লাইকের জন্য অপেক্ষা। যার পোস্টে যত লাইক, ততই চওড়া হাসি তার মুখে।  উত্তাল ঢেউ, কিংবা বিচে ঘুরে বেড়ানোর ভিডিও আপলোড করেন কেউ কেউ। কিন্তু সেসব শখে জল ঢেলে দিচ্ছে ইন্টারনেটের দুর্বল পরিষেবা। দিঘা, মন্দারমনি, তাজপুর, শঙ্করপুর সর্বত্র একই পরিস্থিতি। ছবি তুলে কোনওভাবেই সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করতে পারছেন না পর্যটকরা। নানা চেষ্টা করছেন তারা। কিন্তু কোনোভাবেই তা করা যাচ্ছে না। অভিযোগ পর্যটকদের। 

পুজোর ছুটির মধ্যে অনেকেই দিঘায় বেড়াতে এসেছেন। একেবার ভিড়ে ঠাসা সৈকত শহর।তবে পর্যটকদের দাবি বহু চেষ্টা করেও ছবি পোস্ট করা যাচ্ছে না। বিচে ঘুরে বেড়িয়ে তারপর হোটেলে বসে একটু ছবি পোস্ট করার সুযোগই মিলছে না। প্রায় সব সংস্থার নেট পরিষেবাই কার্যত মুখ থুবড়ে পড়েছে। এদিকে দিঘাতে আসা পর্যটকদের এই মন খারাপ ছুঁয়ে গিয়েছে হোটেল ব্যবসায়ীদেরও। হোটেল ব্যবসায়ীদের দাবি, প্রচুর পর্যটক দিঘাতে আসছেন। ইয়াসের ক্ষত সারিয়ে যেন ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দিঘা। এসবের মধ্য়েই হয়তো ভিড়ের চাপে ধাক্কা খেয়েছে নেট পরিষেবাতেও। এদিকে গোটা ঘটনা নিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছে মোবাইল টাওয়ারকর্মী ইউনিয়ন। কিন্তু দেখা যাক বাস্তবে কী হচ্ছে?

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, অতিবৃষ্টির জেরে কেলেঘাইয়ের বাঁধ ভেঙে পটাশপুর, এগরা, ভগবানপুর সহ বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। দুর্যোগ কবলিত এলাকায় থাকা প্রায় ৪৮টি টাওয়ারে  বিদ্যুৎ সংযোগ মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হয়েছে। এর জেরেই কিছুটা সমস্যা হতে পারে। তবে জেনারেটর চালিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হচ্ছে।

 

বন্ধ করুন