বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘বিরোধীরা জাতীয় পতাকা তুলতে পারবে না?’, সংঘর্ষের পর প্রশ্ন তুললেন নওসাদ
আইএসএফ বিধায়ক নওসাদ সিদ্দিকি
আইএসএফ বিধায়ক নওসাদ সিদ্দিকি

‘বিরোধীরা জাতীয় পতাকা তুলতে পারবে না?’, সংঘর্ষের পর প্রশ্ন তুললেন নওসাদ

  • চাপা উত্তেজনা তৈরি হওয়ায় পুলিশ পিকেটিং করে ভাঙড় থানা। যদিও পরস্পর পরস্পরকে দোষারোপ করেছেন।

স্বাধীনতা দিবসে তুলকালাম পরিস্থিতি তৈরি হল ভাঙড়ে। তৃণমূল কংগ্রেস–আইএসএফ সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল ভাঙড়। এমনকী এই রাজনৈতিক সংঘর্ষে ছড়াল তীব্র উত্তেজনা। সংঘর্ষ এতটাই তীব্র ছিল যে, এই ঘটনায় দু’পক্ষের বেশ কয়েকজন মারাত্মক জখম হয়েছেন। চাপা উত্তেজনা তৈরি হওয়ায় পুলিশ পিকেটিং করে ভাঙড় থানা। যদিও পরস্পর পরস্পরকে দোষারোপ করেছেন।

এই ঘটনা নিয়ে আইএসএফ বিধায়ক নওসাদ সিদ্দিকি অভিযোগ করেন, আজ তৃণমূল কংগ্রেসের দুষ্কৃতীরা আমাদের কর্মীদের উপর অত্যাচার করেছে। স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচি পালন করতে গেলে তৃণমূল কংগ্রেস ঝামেলা করেছে। প্রতিবাদ করলে মারধর করা হয়। এলাকার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কাইজার আহমেদের নেতৃত্বে এই ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ বিধায়কের।

নওসাদ সিদ্দিকীর অভিযোগ অস্বীকার করেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কাইজার আহমেদ। তিনি দাবি করেন, নলমুড়িতে অতর্কিতভাবে আইএসএফ কর্মীরা তাঁদের কর্মীদের উপর আক্রমণ করে। তাতে বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। স্বাধীনতা দিবসের নাম করে নওসাদ সিদ্দিকি এলাকায় উত্তেজনা ছড়াচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন কাইজার।

এই বিষয়ে নওসাদ বলেন, ‘‌নলবলীতে পতাকা তোলার কথা ছিল। খবর আসে বাঁশ পুতে আমাদের কর্মীরা জাতীয় পতাকা উত্তোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল, তখন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কাইজার আহমেদের নেতৃত্বে কিছু অ্যান্টিসোশ্যাল এসে আমাদের কর্মীদের ব্যাপক মারধর করে। আমি একটা প্রশ্ন করতে চাই রাজ্য সরকার ও প্রশাসনের কাছে। বিরোধীরা কি জাতীয় পতাকা উত্তোলনও করতে পারবে না?’‌

আর তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কাইজার আহমেদের অভিযোগ, পতাকা তোলার নামে ভাঙড়ে রাজনীতি করতে এসেছেন নওসাদ সাহেব। প্রশাসনকে অভিযোগ জানিয়েছি। না পদক্ষেপ করলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামছি। স্বাধীনতা দিবসে এমন নোংরা কাজ কেউ প্রত্যাশা করিনি।

বন্ধ করুন