বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Arrested: অভিনেত্রী রিয়া খুনে গ্রেফতার স্বামী, বয়ানে বিস্তর অসঙ্গতি, নেপথ্যে কী উঠে এল?‌

Arrested: অভিনেত্রী রিয়া খুনে গ্রেফতার স্বামী, বয়ানে বিস্তর অসঙ্গতি, নেপথ্যে কী উঠে এল?‌

প্রকাশ কুমারের বয়ানে বিস্তর অসঙ্গতি থাকায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ইশাকে গাড়ির মধ্যে যখন দেখেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা তখন তাঁর কানের পাশে ফুটো ছিল। রক্ত বের হচ্ছিল। কিন্তু কাঁচ ঢাকা গাড়িতে গুলি চালালে তো কাঁচ ভেঙে যাওয়ার কথা। সেটা হল না কেন? এটাই পুলিশকে ভাবিয়ে তোলে। প্রকাশের বক্তব্যে নানা অসঙ্গতি ধরা পড়ে। তার বয়ান মিলিয়ে দেখে বোঝা যায় তিনি জড়িয়ে রয়েছেন।

বাগনান শুটআউটে আজ, বৃহস্পতিবার গ্রেফতার হলেন ইউটিউবার তথা ঝাড়খণ্ডের অভিনেত্রী ইশা আলিয়ার স্বামী। মৃত অভিনেত্রী রিয়া কুমারী ওরফে ইশা আলিয়ার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর স্বামী প্রকাশ কুমারের বয়ানে বিস্তর অসঙ্গতি থাকায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ইশার স্বামী প্রকাশ ঝাড়খণ্ডের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির প্রযোজক ছিলেন। স্বামী–স্ত্রীর মধ্যে পেশাগত সমস্যা ছিল বলেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও রিয়ার পরিবারের অভিযোগ, মেয়ের উপর মানসিক অত্যাচার করত প্রকাশ। তাই মেয়েকে খুন করা হয়েছে। আর ইশার স্বামী প্রকাশ কুমারের অভিযোগ, গাড়ি থামিয়ে কিছুক্ষণের জন্য নেমেছিলেন তিনি। তখনই ইশাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা।

ঝাড়খণ্ড থেকে কলকাতা আসার পথে হাওড়ার বাগনানের রাজাপুর এলাকায় জাতীয় সড়কের উপর মহিষরেখা সেতুতে গুলি করে খুন করা হয় রিয়া কুমারীকে। তিনি ঝাড়খণ্ডের একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী। স্বামী এবং সন্তানের সঙ্গেই তিনি ঝাড়খণ্ড থেকে কলকাতায় আসছিলেন। তাঁর স্বামী প্রকাশ কুমার গাড়ি চালাচ্ছিলেন। শিশুকন্যার সামনে গুলি করে খুন করা হয় অভিনেত্রী রিয়া কুমারী ওরফে ইশা আলিয়াকে। তদন্তে নেমে ইশার স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই বয়ানে একাধিক অসঙ্গতি মিলেছিল। গুলি লেগেছিল অভিনেত্রীর ডানদিকে কানের উপরে। গাড়ির বাইরে থেকে গুলি চালালে ডানদিকে গুলি লাগা কার্যত অসম্ভব। তাও শুধু মানিব্যাগ ছিনতাই করতে দুষ্কৃতীরা গুলি চালাবে এটা মেনে নিতে পারছিল না পুলিশ। তাই প্রথম থেকেই সন্দেহের তির ছিল স্বামীর দিকে।

এদিকে ইশাকে গাড়ির মধ্যে যখন দেখেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা তখন তাঁর কানের পাশে ফুটো ছিল। গুলির দাগ ছিল। রক্ত বের হচ্ছিল। কিন্তু কাঁচ ঢাকা গাড়িতে গুলি চালালে তো কাঁচ ভেঙে যাওয়ার কথা। সেটা হল না কেন? এটাই পুলিশকে ভাবিয়ে তোলে। কিন্তু প্রকাশের বক্তব্যে নানা অসঙ্গতি ধরা পড়ে। তার সব বয়ান মিলিয়ে দেখে বোঝা যায় কোনওভাবে তিনি জড়িয়ে রয়েছেন ঘটনার সঙ্গে। প্রকাশের সব বয়ান খতিয়ে দেখে পুলিশ। সেতুর কাছে গাড়ি দাঁড় করানো এবং ঠিক সেই সময়েই দুষ্কৃতীদের প্রকাশকে ঘিরে ফেলা— এই দুই ঘটনার সমাপতন ভাবাচ্ছে পুলিশকে।

অন্যদিকে পরিবারের অভিযোগ, রিয়ার রোজগার বাড়তে থাকায় হিংসা তৈরি হয়েছিল প্রকাশের। ইউটিউবার হওয়ায় রিয়ার গতিবিধি নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করতেন তিনি। তাই অভিনেত্রীর উপর চলত মানসিক এবং শারীরিক নির্যাতন। রিয়ার উপার্জন করা অর্থ জোর করে নিয়ে নিতেন প্রকাশ। আর সেই থেকেই অশান্তির সূত্রপাত। দাম্পত্য কলহ বড় আকার নিতেই পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় রিয়াকে। মৃতা অভিনেত্রীর পরিবার স্বামী প্রকাশ কুমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে বাগনান থানায়। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতার করা হল তাঁকে।

বন্ধ করুন