বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘কখনও কখনও শয়তান ফেরেস্তার ছদ্মবেশে আসে’, জলপাইগুড়িতে বললেন সেলিম
মহম্মদ সেলিম। নিজস্ব চিত্র

‘কখনও কখনও শয়তান ফেরেস্তার ছদ্মবেশে আসে’, জলপাইগুড়িতে বললেন সেলিম

  • জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের দুর্নীতি রুখতে শুক্রবার জেলা পরিষদ অভিযানে সামিল হয় বামফ্রন্ট। এ দিন শহরের শান্তি পাড়া থেকে মিছিল শুরু হয় শহর পরিক্রমা করে জেলা পরিষদের সামনে হাজির হন বাম নেতা কর্মীরা।

'ডিএম, এসপি, ডিজি, এসডিও, বিডিওদের কাঠের পুতুল বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সব ক্ষমতা এখন কালীঘাটে। আমরা ওদের বলছি আইন মেনে কাজ করুন। কালীঘাটে লাইন দিলে চলবে না, পুলিশকে জলপাইগুড়ির সভা থেকে এভাবেই হুঁশিয়ারি দিলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সেলিম। তিনি আরও বলেন, 'দুর্নীতি ও চাকরির নামে তোলা টাকা একাংশ পুলিশের হাত দিয়ে কালীঘাটে ভাইপো ও পার্থর কাছে জমা পড়ছে। বাংলার পুলিশের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে ইডি ও সিবিআই, তৃণমূলের নেতাদের বাড়ির খাটের নিচে টাকা, রান্না ঘরে টাকা ও পাইপে টাকা। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুলিশের চোখে ঠুলি পরিয়ে রেখেছে’

জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের দুর্নীতি রুখতে শুক্রবার জেলা পরিষদ অভিযানে সামিল হয় বামফ্রন্ট। এ দিন শহরের শান্তি পাড়া থেকে মিছিল শুরু হয় শহর পরিক্রমা করে জেলা পরিষদের সামনে হাজির হন বাম নেতা কর্মীরা। পুলিশের দু’টি ব্যারিকেড ভেঙে জেলা পরিষদের সামনে মঞ্চ করে সভা করল বামফ্রন্ট।

সেখানে সেলিম বলেন, কখনও কখনও শয়তান ফেরেস্তার ছদ্মবেশে আসে। আর এই আরএসএস আমাদের দেশের জন্য সবচেয়ে বেশি বিপদ। জলপাইগুড়িতে পানীয় জল নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে, সঙ্গে নদী থেকে দেদারে বালি পাথর তোলা হচ্ছে। দুর্নীতিবাজদের পুলিশ ধরবে নয় ইডি সিবিআই ধরবে। তা না হলে মানুষ ধরে সরষ ও আখের রস যেভাবে বের করা হয় ঠিক সেভাবে দুর্নীতিবাজদের থেকে টাকা উদ্ধার করে মানুষের কাছে তুলে দিতে হবে।’

এদিনের সভায় ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে জেলার কর্মীদের চাঙ্গা করতে বামেদের এই কর্মসূচি বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন