বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সুপারিশে BJP-র দুই বিধায়কের আত্মীয়কে চাকরি দেওয়ার অভিযোগ
‌কল্যাণী এইমস

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সুপারিশে BJP-র দুই বিধায়কের আত্মীয়কে চাকরি দেওয়ার অভিযোগ

  • যার মেয়ের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ, সেই বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানা জানান, ‘‌এই অভিযোগ সবৈব মিথ্যা। আমার মেয়ে কোনও ডাক্তারি লাইনে নয়। সিম্পল এডুকেশন লাইনে পড়াশোনা করছে।’‌

‌কল্যাণী এইমসে চাকরি পাইয়ে দেওয়া নিয়ে স্বজনপোষণের অভিযোগ উঠল। বিজেপির দুই বিধায়কের আত্মীয়কে চাকরি পাইয়ে দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ করেছেন বিজেপিরই এক নেতা। এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সুপারিশে চাকরি পাইয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই অভিযোগ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে ইমেল করেছেন ওই বিজেপি নেতা।

জানা গিয়েছে, কল্যাণী এইমসে নার্সিং কলেজে ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের কাজ পেয়েছেন বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানার মেয়ে মৈত্রী দানা। গত ১ এপ্রিল থেকে ওই কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠানে চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। আরও জানা যাচ্ছে, তাঁকে চাকরি দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুভাষ সরকার। একইসঙ্গে চাকদহের বিধায়ক বঙ্কিম চন্দ্র ঘোষের পুত্রবধূকেও কল্যাণী এইমসে চাকরি পাইয়ে দেওয়া নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। এভাবে বিজেপি বিধায়কের দুই আত্মীয়ের চাকরি পাওয়াকে মোটেই ভালো চোখে দেখছে না বিজেপির কর্মীরা। এই প্রসঙ্গে বিজেপির বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সদস্য পার্থ চট্টোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে ইমেল করে নালিশ জানিয়েছেন। গত ৬ মে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে পাঠানো ইমেলে তিনি লিখেছেন, ‘‌দলের যে সমস্ত কর্মী খুন হলেন, তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই করছেন বা দলের হয়ে কাজ করছেন, তাঁরা ও তাঁদের পরিবার বঞ্চিত। বিধায়ক বা সাংসদরা এমনিতেই দলের থেকে পেয়েছেন। তারপরও এভাবে স্বজনপোষণ চলছে। পার্টির যদি কেউ চাকরি পেয়ে থাকে, তাহলে নেতা কর্মীদের আগে দিতে হবে। বিধায়ক–সাংসদের ব্যাপারটা পরে আসবে।’‌

যার মেয়ের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ, সেই বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানা জানান, ‘‌এই অভিযোগ সবৈব মিথ্যা। আমার মেয়ে কোনও ডাক্তারি লাইনে নয়। সিম্পল এডুকেশন লাইনে পড়াশোনা করছে।’‌ তবে বিজেপি বিধায়কদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি তৃণমূল। তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ জানান, ‘‌নীলাদ্রিশেখর দানার মেয়েকে পরীক্ষা দিতে হল না, যোগ্যতা নির্ধারণ করা হল না, চাকরি দিয়ে দেওয়া হল। তাঁরা আবার আঙুল তুলছে। তাঁদের মুখে আবার বড় বড় কথা। কাঁচের ঘরে বসে ঢিল ছুড়ছে বিজেপি। কাঁচের ঘরে বসে ঢিল ছুড়ছে সিপিএম।’‌ উল্লেখ্য, রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়েকে চাকরি পাইয়ে দেওয়াকে কেন্দ্র করে যখন তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলছে বিরোধীরা, তখন বিজেপির দুই বিধায়কের আত্মীয়কে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা বলেই মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন