বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শনিবার জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা, শহর থেকে জেলায় চলছে জোরকদমে প্রস্তুতি
হ্যামিল্টন হাইস্কুলে দমকল আধিকারিকরা এসে স্কুল স্যানিটাইজ করেন।
হ্যামিল্টন হাইস্কুলে দমকল আধিকারিকরা এসে স্কুল স্যানিটাইজ করেন।

শনিবার জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা, শহর থেকে জেলায় চলছে জোরকদমে প্রস্তুতি

  • এখন করোনাভাইরাসের গ্রাফ নিম্নমুখী। তবুও সরকারি নিয়ম অনুসারে প্রতিটি সেন্টারে একটি বেঞ্চে একজন করে পড়ুয়া বসবে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত প্রায় ১৮ মাস পঠন–পাঠন থেকে অনেকটাই দূরে ছিল পড়ুয়ারা। এবার দীর্ঘদিন পর পড়ুয়ারা বসতে চলেছে পরীক্ষায়। তাও আবার জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায়। আগামীকাল, শনিবার রাজ্যের বিভিন্ন সেন্টারে নেওয়া হবে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা। রাজ্যের অন্যান্য জেলার পাশাপাশি পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুক, পাঁশকুড়া, কাঁথি এবং হলদিয়ায় পরীক্ষার সেন্টার পড়েছে। তাই সেখানে প্রস্তুতি চলছে জোরকদমে।

এখন করোনাভাইরাসের গ্রাফ নিম্নমুখী। তবুও সরকারি নিয়ম অনুসারে প্রতিটি সেন্টারে একটি বেঞ্চে একজন করে পড়ুয়া বসবে। শুক্রবার তমলুকের হ্যামিল্টন হাইস্কুলে দমকল আধিকারিকরা এসে স্কুল স্যানিটাইজ করেন। কাঁথিতে দুটি সেন্টার, পাঁশকুড়ায় দুটি, হলদিয়ায় একটি এবং তমলুকে একটি সেন্টার পড়েছে। জেলায় মোট ৬টি সেন্টার রয়েছে। সেই সেন্টারগুলিতে কোভিডের সমস্ত গাইডলাইন মেনেই পরীক্ষা নেওয়া হবে। আজ চলছে তারই প্রস্তুতি।

তমলুক হ্যামিল্টন হাইস্কুলে ৩৫০ জন পড়ুয়া পরীক্ষা দেবে। তাই তাদের জন্য ২৫টি ঘর প্রস্তুত করা হয়েছে। কোভিডের সমস্ত বিধি মেনেই পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। মাস্ক পরে আসতে হবে। মানতে হবে শারীরিক দূরত্ববিধি। এখন করোনাভাইরাস অনেকটা কমেছে। তাই পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কিন্তু সবদিক বজায় রাখতে সেন্টারগুলিতে চলছে স্যানিটাইজেশনের কাজ।

বন্ধ করুন