বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘এতবার দিন বদলেছে যে মনেই ছিল না আজ লকডাউন’, পুলিশের প্রশ্নে কাতর আর্তি যুবকের
প্রতীকি ছবি (PTI)
প্রতীকি ছবি (PTI)

‘এতবার দিন বদলেছে যে মনেই ছিল না আজ লকডাউন’, পুলিশের প্রশ্নে কাতর আর্তি যুবকের

  • সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকর্মীর প্রশ্ন, ‘কেন কাল মাইকে প্রচার করা হয়েছে শোনেননি?’ জবাবে যুবক বলেন, ‘গলির ভিতরে বাড়ি স্যার। অতদূর আওয়াজ পৌঁছয় না।

দক্ষিণবঙ্গজুড়ে মুশলধারে বৃষ্টির মধ্যেও লকডাউনে লাঠি হাতে ছুটতে হয়েছে পুলিশকে। কখনো ওষুধ কেনার অজুহাতে তো কখনো দুধ কিনতে বেরিয়েছি বলে রাস্তায় ঘুরে বেড়িয়েছেন একদল মানুষ। পুলিশের তাড়া খেয়ে তাদের কেউ কেউ আবার ঢুকেছেন বাড়িতে। কিন্তু খড়গপুরে এক যুবক যা যুক্তি সাজালেন তাতে কিছু বলতে পারলেন না পুলিশকর্মীরাও। মাথা নীচু করে রাস্তা ছেড়ে দিলেন যুবককে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে খড়গপুর শহরের গোলবাজারের ভাণ্ডারিচকে তখন ফুল ফর্মে ব্যাটিং করছে পুলিশ। স্লগ ওভারে হাফ ভলির মতো বাইক স্কুটার দেখলেই চলছে লাঠি। এমন সময় রয়্যাল এনফিল্ডে চালিয়ে সেখানে হাজির হন এক যুবক। তাঁকে পুলিশকর্মীরা জিজ্ঞাসা করেন, লকডাউনে কেন রাস্তায় বেরিয়েছেন তিনি? জবাবে পুলিশকর্মীদের তিনি বলেন, ‘এতবার দিন পরিবর্তন হয়েছে যে মনেই ছিল না আজ লকডাউন। সব গুলিয়ে গিয়েছে স্যার। আমি তো জানতাম ২১ ও ২২ তারিখ লকডাউন।’ 

সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকর্মীর প্রশ্ন, ‘কেন কাল মাইকে প্রচার করা হয়েছে শোনেননি?’ জবাবে যুবক বলেন, ‘গলির ভিতরে বাড়ি স্যার। অতদূর আওয়াজ পৌঁছয় না। পুলিশের প্রচার গাড়িও গলির মধ্যে ঢোকে না।‘ তার পরেও হাল ছাড়েননি ওই পুলিশকর্মী। প্রশ্ন করেন, ‘রাস্তায় বেরিয়ে দোকানপাট বন্ধ দেখে বোঝেননি লকডাউন?’ জবাবে যুবক বলেন, ‘মনে একবার হয়েছিল বটে। তারপর ভাবলাম আজ তো বৃহস্পতিবার। তাই সব দোকান বন্ধ।’ যুবকের যুক্তির সামনে আর কিছু বলার খুঁজে পাননি পুলিশকর্মী। যুবককে বাড়ি ফিরে যেতে বলেন তিনি। 

বলে রাখি, অগাস্টের লকডাউনের দিন অন্তত ৫ বার পরিবর্তন করেছে নবান্ন। তার মধ্যে ১ দিনেই তিন বার বদল হয়েছে লকডাউনের দিনক্ষণ। যা নিয়ে চরম বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দাবি, বিরোধীরা যেন কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচি ঘোষণা করতে না পারে সেজন্য বারবার লকডাউনের নির্ঘণ্ট বদল করছে রাজ্য সরকার। 

 

বন্ধ করুন