বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ৭ দিন ধরে খেজুরিতে চলছিল বোমা বাঁধার কাজ, জানতই না পুলিশ? NIA তদন্তে উঠে এল তথ্য
খেজুরি বিস্ফোরণকাণ্ডে NIA-র হাতে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

৭ দিন ধরে খেজুরিতে চলছিল বোমা বাঁধার কাজ, জানতই না পুলিশ? NIA তদন্তে উঠে এল তথ্য

  • মঙ্গলবার NIA-র তরফে দাবি করা হয়েছে, জেরায় ধৃতরা জানিয়েছেন, ওই তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে যে বোমা বাঁধা চলছিল তা তাঁরা জানতেন। বিস্ফোরণের অন্তত ৭ দিন আগে থেকে সেখানে বোমা বাঁধা হচ্ছিল।

খেজুরি বিস্ফোরণকাণ্ডে তৃণমূলের ৩ নেতার গ্রেফতারির পরই চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেল NIA সূত্রে। খেজুরিতে ওই তৃণমূলকর্মীর বাড়িতে যে বোমা বাঁধার কাজ চলছে তা তাঁরা জানতেন বলে জেরায় স্বীকার করেছেন ধৃতরা। এমনটাই দাবি গোয়েন্দাদের। এই বোমা কার নির্দেশে বাঁধা হচ্ছিল ও কোথায় ব্যবহারের পরিকল্পনা ছিল তা জানতে তদন্ত চালাচ্ছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা।

গত ৩ জানুয়ারি খেজুরির পশ্চিম ভাঙনবাড়িতে বোমা বিস্ফোরণে বেশ কয়েজন আহত হন। তাদের মধ্যে ৩ জনের মৃত্যু হয়। ঘটনার তদন্তভার হাতে নেয় NIA. এই ঘটনায় সোমবার খেজুরির জনকা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন প্রধান ও অঞ্চল তৃণমূল সভাপতি সমরশংকর মণ্ডলকে গ্রেফতার করেন গোয়েন্দারা। সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় আরিফ বিল্লা ও শহিদুল আলি নামে আরও ২ তৃণমূল নেতাকে।

মঙ্গলবার NIA-র তরফে দাবি করা হয়েছে, জেরায় ধৃতরা জানিয়েছেন, ওই তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে যে বোমা বাঁধা চলছিল তা তাঁরা জানতেন। বিস্ফোরণের অন্তত ৭ দিন আগে থেকে সেখানে বোমা বাঁধা হচ্ছিল।

গোয়েন্দা সূত্রের খবর, এই বোমা কার নির্দেশে বাঁধা হচ্ছিল তা জানতে তদন্ত চলছে। বোমা কোথায় ব্যবহারের পরিকল্পনা ছিল তা নিয়ে ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

গত ৩ জানুয়ারি বিস্ফোরণের পর তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছিল গ্যাস সিলিন্ডার ফেটেছে। পরে তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে সেখানে।

তৃণমূলের দাবি, শুভেন্দু অধিকারী পরিকল্পনা করে এই ঘটনায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ফাঁসাচ্ছেন। পালটা বিজেপির দাবি, জাতীয় নিরাপত্তার পক্ষে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই ঘটনা তারই প্রমাণ।

 

বন্ধ করুন