বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > চন্দনার বিরহে 'দেবদাস' হলেন কৃষ্ণ,ফের হাসপাতালে বিজেপি বিধায়কের 'দ্বিতীয় স্বামী'
চন্দনা বাউড়িকে ছেড়ে থাকতে পারবেন না, জানালেন বিজেপি বিধায়কের গাড়িচালক
চন্দনা বাউড়িকে ছেড়ে থাকতে পারবেন না, জানালেন বিজেপি বিধায়কের গাড়িচালক

চন্দনার বিরহে 'দেবদাস' হলেন কৃষ্ণ,ফের হাসপাতালে বিজেপি বিধায়কের 'দ্বিতীয় স্বামী'

  • চন্দনা বাউড়ির 'দ্বিতীয় স্বামী' কৃষ্ণ কুণ্ডু ফের একবার হাসপাতালে ভর্তি হলেন।

চন্দনা বাউড়ির 'দ্বিতীয় স্বামী' কৃষ্ণ কুণ্ডু ফের একবার হাসপাতালে ভর্তি হলেন। বিজেপি বিধায়কের বিরহে নাকি কৃষ্ণ এত মদ্যপান করেছেন যে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার কৃষ্ণকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের মেল মেডিক্যাল ওয়ার্ডে ভর্তিকরা হয়েছে। সেখানে ভর্তি অবস্থাতেই নাকি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুভাষ সরকার এবং বিজেপি বিধায়ক সত্যনারায়ণ মুখোপাধ্যায়কে সতর্ক করেন কৃষ্ণ। তাঁর অভিযোগ, চন্দনার সঙ্গে তাঁর দূরত্ব বৃদ্ধির নেপথ্যে রয়েছেন এই দুইজন। তাঁদের মুখোস খোলার দাবিও করেন কৃষ্ণ।

জানা গিয়েছে, অত্যাধিক মদ্যপানের কারণে বমি, প্রবল মাথা যন্ত্রনায় ভুগছেন কৃষ্ণ। নিজের পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পর্যন্ত পারছেন না কৃষ্ণ। কৃষ্ণর প্রথম স্ত্রী রুম্পা জানিয়েছেন, জন্মাষ্টমীর দিন সকাল থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন কৃষ্ণর। উল্লেখ্য, সাতদিন আগেই এই হাসপাতালে থেকেই বাড়ি ফিরেছিলেন কৃষ্ণ। ফের একবার অসুস্থ হয়ে ভর্তি হলেন হাসপাতালে।

কয়েকদিন আগেই একটি সূত্র মারফত খবর পাওয়া যায় যে বিজেপি বিধায়ক চন্দনা নিজের স্বামীর ঘর ছেড়ে পালিয়েছেন কৃষ্ণপদ কুণ্ডু নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে। চন্দনা-কৃষ্ণর বিয়ের একটি ছবিও প্রকাশ্যে চলে আসে। এই ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়ে যান বিজেপির জেলার নেতারা। কটাক্ষ শুরু হয়ে যায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের।

পরে অবশ্য এই ঘটনা নিয়ে জলঘোলা হতেই স্বামী শ্রবণ বাউরিকে পাশে বসিয়ে একটি ফেসবুক লাইভও করেন চন্দনা। সেখানে তিনি দাবি করেন যে, বিরোধীরা চক্রান্ত করে তাঁর বদনাম করছে। স্বামীর সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির জেরে তিনি থানায় চলে গিয়েছিলেন। পরে অবশ্য ভুল বুঝতে পেরেছেন। বিরোধীরা বারবার তাঁর নামে মিথ্যা অভিযোগ করছে বলেও তিনি দাবি করেন।

উল্লেখ্য, প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা হওয়ার পরই চন্দনা সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নির্বাচনী প্রচারে এসে তাঁর নাম আলাদা ভাবে নিয়ে গিয়েছিলেন। ভোটে জিতে তাঁর জনপ্রিয়তা বেড়ে যাওয় আরও কয়েক গুণ।

বন্ধ করুন