সংঘর্ষের পর বাপের বাড়িতে সুস্মিতাদেবী।
সংঘর্ষের পর বাপের বাড়িতে সুস্মিতাদেবী।

অসুস্থ মা কে দেখতে বাপের বাড়ি গিয়ে গ্রামবাসীদের বাধার মুখে মেয়ে, উত্তেজনা সলপে

  • অভিযোগ, গ্রামবাসীদের সঙ্গে বিতণ্ডায় জড়ান সুস্মিতা ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। স্থানীয়দের মারধর করেন তাঁরা।

করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় বিবাহিত মেয়েকে বাপের বাড়িতে ঢুকতে বাধা গ্রামবাসীদের। তা থেকেই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তুমুল উত্তেজনা ছড়াল হাওড়ার সলপে। অভিযোগ, মেয়েকে বাপের বাড়ি ঢুকতে না দিয়ে মারধর করেন স্থানীয়রা। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

মা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। খবর পেয়ে মোটরসাইকেলে করে বৃহস্পতিবার বিকেলে ডানকুনি থেকে বাপের বাড়ি সলপে আসেন সুস্মিতা কয়াল। কিন্তু বাড়ির মুখে তাঁদের পথ আগলে দাঁড়ান স্থানীয়রা। তাদেঁর দাবি, রেড জোন হাওড়ায় বাইরে থেকে লোক ঢুকলে সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছেন। সুস্মিতাকে শ্বশুরবাড়ি ফিরে যেতে বলেন তাঁরা। 

অভিযোগ, এর পর গ্রামবাসীদের সঙ্গে বিতণ্ডায় জড়ান সুস্মিতা ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। স্থানীয়দের মারধর করেন তাঁরা। তাতে কয়েকজনের মাথা ফেটেছে বলে অভিযোগ। পালটা সুস্মিতা যে মোটরসাইকেলে করে এসেছিলেন সেটি ভাঙচুর করেন স্থানীয়রা। ভাঙচুর করা হয় সুস্মিতার বাপের বাড়ি।

ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছয় পুলিশ। তার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়। স্থানীয়দের কথায়, এমনিতেই হাওড়া জেলা রেড জোনে। করোনা সংক্রমণের ভয়ে আমরা সিঁটিয়ে রয়েছি। বাইরে থেকে এলাকায় লোক ঢোকায় সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সেখানে ওরা এলাকায় ঢুকলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা ছিল। বার বার বোঝানো সত্বেও তারা বুঝতে রাজি হননি। উলটে গ্রামবাসীদের ওপর হামলা চালান।

ঘটনায় দুপক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

বন্ধ করুন