বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নীল আবির মেখে প্রচার, বিতর্কের কিছু দেখছেন না বাম প্রার্থী
প্রচারে বামপ্রার্থী
প্রচারে বামপ্রার্থী

নীল আবির মেখে প্রচার, বিতর্কের কিছু দেখছেন না বাম প্রার্থী

  • সৌমেন মাহাতো জানান, ‘‌দুর্গাপুজোর নিরঞ্জনের সময় কয়েকজন আমাকে নীল আবির মাখিয়ে দেয়। আমাদের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময় হয়। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।’‌

‌নীল আবির মেখেই প্রচার সারলেন শান্তিপুরের বাম প্রার্থী সৌমেন মাহাতো। যদিও প্রচারে নীল আবির মাখার মধ্যে বিতর্কের কিছু দেখেন না বাম প্রার্থী। তবুও নির্বাচনের প্রাককালে এনিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি তৃণমূল সহ অন্য রাজনৈতিক দল।

আগামী ৩০ অক্টোবর শান্তিপুরে উপনির্বাচন। তার আগে গত মঙ্গলবার প্রচারে বেড়িয়েছিলেন শান্তিপুরের বাম প্রার্থী সৌমেন মাহাতো। তখনই প্রতিমা নিরঞ্জনের জন্য যাচ্ছিলেন একদল লোক। সৌমেনকে দেখে এগিয়ে আসেন তাঁরা ও তাঁকে নীল আবির মাখিয়ে দেন। নীল আবির মেখেই বাড়ি বাড়ি বাকি প্রচার সারলেন বাম প্রার্থী। এবারে উপনির্বাচনে ৪ কেন্দ্রের মধ্যে শান্তিপুরই একমাত্র কেন্দ্র যেখানে বাম ও কংগ্রেস আলাদা প্রার্থী দিয়েছে। তাই এই কেন্দ্রে নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করার ব্যাপারে বাড়তি চ্যালেঞ্জ রয়েছে বামেদের। সেই চ্যালেঞ্জকে মাথায় নিয়েই প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন সৌমেন। তবে তাঁর এই নীল আবির মেখে প্রচার চালিয়ে যাওয়ার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

এই প্রসঙ্গে বাম প্রার্থী সৌমেন মাহাতো জানান, ‘‌দুর্গাপুজোর নিরঞ্জনের সময় কয়েকজন আমাকে নীল আবির মাখিয়ে দেয়। আমাদের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময় হয়। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।’‌ যদিও পুরো বিষয়টি নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূল প্রার্থী ব্রজকিশোর গোস্বামী। তিনি জানান, সিপিএম দলটা এখন লাল, নীল, এমনকি সবুজ রঙের আবির মাখতে পারে। গেরুয়া রঙের আবির মাখলেও অবাক হব না। অন্যদিকে বামেদের প্রাসঙ্গিকতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস। তাঁর মতে, সিপিএমের এখন কোনও বিশ্বাসযোগ্যতা নেই। মানুষ এখন তাঁদের প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা এখন তৃণমূলের এজেন্ট হিসাবে কাজ করছে। অন্যদিকে অন্য কেন্দ্র জোটে থাকা কংগ্রেস এই কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমে সিপিএমকে বিশ্বাসঘাতক বলে আখ্যা দিয়েছে।

 

বন্ধ করুন