বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ফোন করে ডেকেও বনধে বিক্ষোভ দেখাতে এল না কেউ, বিরসবদনে কাজে বসলেন ব্যাঙ্ক কর্মীরা

ফোন করে ডেকেও বনধে বিক্ষোভ দেখাতে এল না কেউ, বিরসবদনে কাজে বসলেন ব্যাঙ্ক কর্মীরা

প্রতীকি ছবি

স্ত্রী লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পায়, বাড়িতে অশান্তির ভয়ে ব্যাঙ্কে বিক্ষোভ দেখাতে গেলেন না বাম কর্মী সংগঠনের সদস্যরা। 

ফোন করে ডাকলেও ধর্মঘটে ব্যাঙ্কে বিক্ষোভ দেখাল না কেউ। ফলে ছুটির মতলবে অফিসে এসেও দিনভর কাজ করতে হল কর্মীদের। ঘটনায় মুখভার উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙার একটি রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্কের কর্মীদের।

সোমবার দেশজুড়ে বামেদের ধর্মঘটের প্রথম দিনে রাজ্যে মোটের ওপর স্বাভাবিক জনজীবন। কোথাও কোথাও রেল ও পথ অবরোধ হলেও পরিষেবা ভেঙে পড়েনি। এই পরিস্থিতিতে বনধের দিন এক আজব ছবি দেখা গেল একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে। এদিনও সময়মতো ব্যাঙ্কে পৌঁছে গিয়েছিলেন কর্মীরা। ইচ্ছা ছিল, বামপন্থী ইউনিয়নের কেউ বিক্ষোভ দেখালেই ঝাঁপ ফেলে বাড়ি ফিরবেন। বাইরে তখন লাইন দিয়ে গ্রাহকরা। ঘড়ির কাঁটা ১০টা ছুঁতে চললেও বিক্ষোভ দেখাতে এলেন না কেউ। ওদিকে উদ্বেগ বাড়তে থাকে ব্যাঙ্ককর্মীদের মধ্যে। তবে কি বেঘোরে মৃত্যু হবে জ্বলজ্যান্ত একটা ছুটির? উদ্বেগ সামলাতে না পেরে জনৈক বাম কর্মীকেই ফোন করে বসলেন ব্যাঙ্কের এক আধিকারিক।ফোনে বললেন, কী রে, সব জায়গায় ব্যাঙ্কে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। তোরা দেখাবি না? কিন্তু তাতেও কাজ হল না।

 

মন মরা হয়ে সেই আধিকারিক বলেই বসলেন, ‘ফোন করে ব্যাঙ্কে বিক্ষোভ দেখাতে আসতে বললাম। বলল, বউ লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পায়। বামেদের বনধে বিক্ষোভ দেখাতে গেলে বাড়িতে প্রবল অশান্তি হবে। তাই দাদা এবারটা মাফ করুন’। অবশেষে মুখ হাঁড়ি করে নিজেদের চেয়ারে বসলেন ব্যাঙ্ক কর্মীরা। খুলল ব্যাঙ্কের দরজা। ঢুকলেন গ্রাহকরা।

 

বন্ধ করুন