বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তুমুল আলোড়ন জেলা বিজেপিতে, হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন শুভেন্দু অধিকারী
শুভেন্দু অধিকারী।  (Utpal Sarkar)
শুভেন্দু অধিকারী।  (Utpal Sarkar)

তুমুল আলোড়ন জেলা বিজেপিতে, হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন শুভেন্দু অধিকারী

  • রবিবার তমলুক সাংগঠনিক জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে ৪২টি মণ্ডল সভাপতির নাম ঘোষণা করা হয়। যেখানে পুরনো মণ্ডল সভাপতিরা বাদ পড়েছেন। তাতে আদি–নব্যের দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। জেলা সভাপতি তপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠদের নাম রয়েছে।

এই মুহূর্তে রাজ্য–রাজনীতির সবচেয়ে বড় খবর হল, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জেলা বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে লেফট হলেন। সকালেই সাংগঠনিক গ্রুপ থেকে লেফট হয়েছিলেন বিধায়ক অশোক দিন্দা। তারপরই শুভেন্দু অধিকারীর এই জেলার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে লেফট হওয়া নিয়ে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। এমনকী নন্দীগ্রামের বিজেপি বিধায়কের সঙ্গে বিজেপি নেতা সাহেব দাসও লেফট হয়েছেন।

ঠিক কী ঘটেছে জেলা বিজেপিতে?‌ বিজেপি সূত্রে খবর, রবিবার তমলুক সাংগঠনিক জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে ৪২টি মণ্ডল সভাপতির নাম ঘোষণা করা হয়। যেখানে পুরনো মণ্ডল সভাপতিরা বাদ পড়েছেন। তাতে আদি–নব্যের দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। জেলা সভাপতি তপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠদের নাম রয়েছে। তারপরই নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী, ময়নার বিজেপি বিধায়ক অশোক দিন্দা এবং নন্দীগ্রামের বিজেপি নেতা সাহেব দাস গ্রুপ থেকে লেফট হন।

কেন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে লেফট শুভেন্দু? নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক জেলা বিজেপি‌র নেতা বলেন, ‘‌শুভেন্দু যেসব নাম প্রস্তাব করেছিল তাতে আমল দেয়নি দল। তাতে সম্পর্কের দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছিল। এছাড়া শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে রিপোর্ট জমা পড়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। তাই এখন টিকে থাকতে নাটক করছেন। আবার যুক্ত হয়ে যাবেন গ্রুপে।’‌

ঠিক কী সাফাই দেওয়া হয়েছে?‌ এই বিষয়ে বিজেপি নেতা সাহেব দাস সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘এইসব কোনও বিষয় নয়৷ একটা অনুষ্ঠানে শুভেন্দুদা এসেছিলেন, সেখানে আমার মোবাইলটা হারিয়ে যায়৷ তারপর নতুন ফোন কিনে যখন অ্যাপ ডাউনলোড করি, তখন কিছু হয়েছে, যাতে দেখি আমি গ্রুপে নেই৷ তাছাড়া গ্রুপ নিয়ে তো আর রাজনীতি হয় না৷ রাজনীতিটা ময়দানে হয়৷’

বন্ধ করুন