বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'জুস' বলে সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় মদ খাইয়েছিলেন শুভেন্দুর বাবা, তোপ মদনের
মদন মিত্র।

'জুস' বলে সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় মদ খাইয়েছিলেন শুভেন্দুর বাবা, তোপ মদনের

  • বুধবার শুভেন্দু কটাক্ষ করেন, মদন যে একজন ‘চিহ্নিত মাতাল', তা পুরো পশ্চিমবঙ্গের মানুষ জানেন।

'জুস' বলে সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় মদ খাইয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারীর বাবা শিশির। ‘চিহ্নিত মাতাল' কটাক্ষের পর পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা বিরোধী দলনেতাকে একহাত নিয়ে এমনই দাবি করলেন কামারহাটির তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক। সঙ্গে দাবি করলেন, শিশির তাঁকে মদ খাওয়া শেখালেও এখন নিজের ইচ্ছায় সুরা পান করেন।

বুধবার বাদুড়িয়ায় সম্প্রীতির মেলায় আসেন মদন। সেখানে তিনি দাবি করেন, সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় শুভেন্দুর বাবা শিশির মদ খাওয়া শিখিয়েছিলেন। তারপর থেকে সুরা পান শুরু করেছেন। মদনের কথায়, ‘আমি (মদ) খেতে চাইনি। ওর বাবা বলেছিল, এটা মদ না, এটা জুস। তুই খা। আমি বিশ্বাস করে খেয়েছিলাম। সিঙ্গুর (আন্দোলনের) সময় হয়েছিল।’ তারইমধ্যে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষকে আবারও কটাক্ষ করে কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক বলেন, ‘আলো মানে ফিলিপ, পাগলা মানে দিলীপ।’

দিনকয়েক আগে খড়্গপুরে শুভেন্দুকে আক্রমণ শানিয়েছিলেন মদন। নন্দীগ্রামের বিধায়কপদ ছেড়ে দিয়ে যে কোনও আসন থেকে লড়াইয়ের জন্য শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিলেন। বলেছিলেন, 'মায়ের লাল হলে শুভেন্দু নন্দীগ্রাম থেকে ইস্তফা দিক। কাল কামারহাটি ছেড়ে দিচ্ছি আমি। ২৯৪ বিধানসভার যে কোনও আসনে (দাঁড়ানোর) চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি। শের ভুখা মর জায়েগা, লেকিন চুহা নেহি খায়েগা।' সেই আক্রমণের পালটা হিসেবে বুধবার শুভেন্দু কটাক্ষ করেন, মদন যে একজন ‘চিহ্নিত মাতাল', তা পুরো পশ্চিমবঙ্গের মানুষ জানেন। 'এস্টাব্লিশড মাতাল’ মদনের কথার উত্তর দেওয়া মুশকিলের। সেই কটাক্ষের পর অবশ্য থেমে থাকেননি মদন। বলেন, 'জীবনে যে মদ খেয়েছিলাম, তা শুভেন্দুর বাবা খাইয়েছিলাম।'

বন্ধ করুন