বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > স্মার্টফোন চেয়ে মেলেনি, নদিয়ায় আত্মঘাতী মাধ্যমিক পাশ ছাত্রী, এলাকায় চাঞ্চল্য
মৃত ছাত্রীর নাম কেয়া বিশ্বাস(১৬)।

স্মার্টফোন চেয়ে মেলেনি, নদিয়ায় আত্মঘাতী মাধ্যমিক পাশ ছাত্রী, এলাকায় চাঞ্চল্য

  • নতুন স্কুলে ভর্তি হয়ে বিকেলে বাড়ি ফিরে বাবার কাছে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের আবদার করে ছাত্রী। কিন্তু ফোন দেওয়ার জন্য মেয়ের কাছে ১০ দিন সময় চান ছাত্রীর বাবা। পেশায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক রামকৃষ্ণ বিশ্বাস মেয়েকে বলেন, ‘‌১০ দিনের মধ্যেই মোবাইল কিনে দেওয়া হবে।’‌ কিন্তু তাতে সন্তুষ্ট হয়নি ওই ছাত্রী।

মাধ্যমিক পাশ করার পর পরিবারের কাছে স্মার্টফোন চেয়েছিল ছাত্রী। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে তাকে তা দেওয়া হয়নি। এই স্মার্টফোন না পেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিল এই মেধাবী ছাত্রী। এই ঘটনায় ব্যাপক আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। নদিয়ার বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের অনুপস্থিতিতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে ওই ছাত্রী।

ঠিক কী ঘটেছে নদিয়ায়?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, স্মার্টফোন না পেয়ে আত্মঘাতী হল মাধ্যমিক পাশ ছাত্রী। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার ধানতলা এলাকায়। মৃত ছাত্রীর নাম কেয়া বিশ্বাস(১৬)। পরিবার সূত্রে খবর, এই বছরই সে মাধ্যমিকে ৪৪১ নম্বর পেয়ে পাশ করে। ওই দিনই সে মায়ের সঙ্গে স্কুলে গিয়ে কলা বিভাগে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিও হয়।

ঠিক কী বলা হয়েছিল ছাত্রীকে?‌ নতুন স্কুলে ভর্তি হয়ে বিকেলে বাড়ি ফিরে বাবার কাছে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের আবদার করে ছাত্রী। কিন্তু ফোন দেওয়ার জন্য মেয়ের কাছে ১০ দিন সময় চান ছাত্রীর বাবা। পেশায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক রামকৃষ্ণ বিশ্বাস মেয়েকে বলেন, ‘‌১০ দিনের মধ্যেই মোবাইল কিনে দেওয়া হবে।’‌ কিন্তু তাতে সন্তুষ্ট হয়নি ওই ছাত্রী।

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, এরপর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে টিনের ঘরে কাঠামোর বাঁশের সঙ্গে কাপড় জড়িয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে ছাত্রীটি। পরিবারের সদস্যরা এসে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে দেহ উদ্ধার করে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় শোকস্তব্ধ গোটা এলাকা।

বন্ধ করুন