বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শো-কজকে কেন্দ্র করে মালদায় প্রকাশ্যে চলে এল তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

শো-কজকে কেন্দ্র করে মালদায় প্রকাশ্যে চলে এল তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ

  • গত ২৬ জুন টিংকুর রহমান বিশ্বাসকে শোকজ করে তৃণমূল। একাধিক অভিযোগ আনা হয় তাঁর বিরুদ্ধে। তারপর শুরু হয়েছে প্রকাশ্য কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি।

‘দুর্নীতি রুখতে’ শো-কজ। সেই শো-কজকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে চলে এল তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল। কালিয়াচক ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে ‘চোর’ বলে আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেতা নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি। পাল্টা তার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মানহানি মামলা করার হুমকি দিলেন কালিয়াচক ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাস।

গত ২৬ জুন টিংকুর রহমান বিশ্বাসকে শোকজ করে তৃণমূল। একাধিক অভিযোগ আনা হয় তাঁর বিরুদ্ধে। তারপর শুরু হয়েছে প্রকাশ্য কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি।

তৃণমূল নেতা নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারির অভিযোগ, তিনি দল বিরোধী কোনো কথা বলেননি। তিনি দলের কোনও নেতা নন। মালদা জেলার মানুষ এবং মোথাবাড়ি এলাকার মানুষ বলছে টিংকুর রহমান বিশ্বাস ‘চোর’। সেই কথাই বলেছেন তিনি। তিনি আরো বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে টিংকুর রহমান বিশ্বাস হাইকোর্ট কেন সুপ্রিম কোর্টেও যেতে পারেন।‘       

কালিয়াচক ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাস বলেন, ‘দলের উপর আমার আস্থা রয়েছে। নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি আমার বাবার বয়সী।‘ তিনি বলেন, ‘যে ভাষায় তিনি আক্রমণ করেছেন সেই ভাষায় আমরা কথা বলতে পারব না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা শেখাননি। শোকজ দলের অভ্যন্তরীণ বিষয়। কিন্তু নরেন্দ্রবাবু কেন আমাকে কুকথায় আক্রমণ করছেন জানি না।‘ 

শনিবার তিনি জানান, ‘সোমবার নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারির বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মানহানির মামলা করবেন। দলীয় নেতৃত্ব এবং পঞ্চায়েত মন্ত্রীকেও চিঠি দিয়ে জানাবেন বিষয়টি।‘

 

বন্ধ করুন