বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পাঁচ দিন পর মালদা টোটো বিস্ফোরণে নমুনা সংগ্রহ করলেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা
মালদায় দুর্ঘটনাগ্রস্ত টোটোটি ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে রেখেছে পুলিশ 
মালদায় দুর্ঘটনাগ্রস্ত টোটোটি ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে রেখেছে পুলিশ 

পাঁচ দিন পর মালদা টোটো বিস্ফোরণে নমুনা সংগ্রহ করলেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা

  • পরিবারের তরফে জানা যায়, গত কয়েক বছর ধরে টোটো চালাচ্ছিলেন ইলিয়াস। তাঁর স্ত্রী ও ছ’মাসের সন্তান রয়েছে।

বিস্ফোরণের প্রায় ৫ দিন পর মালদায় টোটোয় বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করলেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা। রবিবার সকালে সেখানে যান PPE পরা ২ ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞ। ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন তাঁরা। তবে বিস্ফোরণের কারণ নিয়ে তাঁরা কিছু বলেননি। 

গত মঙ্গলবার মালদা শহরের ঘোড়াপীর এলাকায় একটি চলমান টোটোয় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। বিস্ফোরণের অভিঘাতে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় চালকের দেহ। মুন্ডু গিয়ে পড়ে পাশের বাড়ির চালে। হাত পা ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায় রাস্তায়। বেশ কিছুক্ষণ পর জানা যায় মৃতের নাম মহম্মদ ইলিয়াস। তিনি সুজাপুরের বাসিন্দা। 

পরিবারের তরফে জানা যায়, গত কয়েক বছর ধরে টোটো চালাচ্ছিলেন ইলিয়াস। তাঁর স্ত্রী ও ছ’মাসের সন্তান রয়েছে। দিন পনেরো আগে টোটোর ব্যাটারি বদল করেছিলেন তিনি। তার পর এই বিস্ফোরণ।

একটি আসবাব তৈরির কারখানার জিনিসপত্র পরিবহনের কাজ করতেন ইলিয়াস। সেদিনও আসবাব তৈরির সরঞ্জাম নিয়েই যাচ্ছিলেন। তখনই ঘটে বিস্ফোরণ। যা দেখে প্রাথমিক ভাবে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের ধারণা ছিল ব্যাটারিতে বিস্ফোরণ থেকেই এই দুর্ঘটনা। কিন্তু বিস্ফোরণের তীব্রতা দেখে তা মানতে রাজি নন অভিজ্ঞ পুলিশ আধিকারিকরা। 

মালদায় টোটো বিস্ফোরণের ঘটনায় ইতিমধ্যে NIA তদন্তের দাবি জানিয়েছে বিজেপি। ওদিকে বাড়ির ছেলের এমন নৃশংস মৃত্যুর কারণ জানতে CBI তদন্তের দাবি জানিয়েছেন নিহত ইলিয়াসের পরিজনরা। 

 

বন্ধ করুন