বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গালওয়ানে শহিদ বাংলার ২ জওয়ানের পরিবারকে আর্থিক অনুদান-চাকরির প্রতিশ্রুতি মমতার
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

গালওয়ানে শহিদ বাংলার ২ জওয়ানের পরিবারকে আর্থিক অনুদান-চাকরির প্রতিশ্রুতি মমতার

  • মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'আমাদের মাটির ছেলেদের পাশে আছি।'

গালওয়ানে ভারত-চিনা সেনার সংঘর্ষে শহিদ জওয়ানদের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের দু'জন রয়েছেন। তাঁদের পরিবারের একজন করে সদস্যকে সরকারি চাকরির প্রতিশ্রুতি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে দুই পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়ার ঘোষণা করেন তিনি।

সোমবার রাতের সেই সংঘর্ষে তিনজন জওয়ান মারা গিয়েছিলেন। পরে সেনার তরফে জানানো হয়, প্রবল ঠান্ডায় আহত জওয়ানদের মধ্যে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন এ রাজ্যের রাজেশ ওরাং এবং বিপুল রায়। বীরভূমের মহম্মদবাজারের বেলগড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা রাজেশ ওরাং। অন্যদিকে, আলিপুরদুয়ার শামুকতলা থানার বিন্দিপাড়া এলাকায় বাড়ি রয়েছে বিপুল রায়ের। তবে চাকরিসূত্রে উত্তরপ্রদেশের মীরাটে চলে গিয়েছিলেন তিনি। বছরখানেক লেহ'তে পোস্টিং পেয়েছিলেন। মীরাটের বাড়িতে তাঁর পাঁচ বছরের মেয়ে এবং স্ত্রী থাকেন।

বুধবার দুপুরে সেনার তরফে শহিদ জওয়ানদের নাম সরকারিভাবে প্রকাশ করার কিছুক্ষণ পরই মুখ্যমন্ত্রী টুইটবার্তায় বলেন, 'গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ জওয়ানদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আমি দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, তাঁদের মধ্যে আমাদের রাজ্যের দু'জন (জওয়ান) আছেন - সিপাহি রাজেশ ওরাওঁ (বীরভূমের মহম্মদবাজারের বেলগড়িয়া) এবং জেনারেল ডিউটিতে থাকা বিপুল রায় (আলিপুরদুয়ার শামুকতলা থানার বিন্দিপাড়া)।'

পরে অপর একটি টুইটে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তাঁরা দেশের জন্য যে সর্বোচ্চ ত্যাগ করেছেন এবং তাঁদের পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে, তা কখনও পূরণ করা যাবে না। এই কঠিন পরিস্থিতিতে আমাদের মাটির ছেলেদের পাশে দাঁড়িয়ে আছি। এই বিষয়ে আমরা মৃত পরিবারের একজন করে সদস্য পশ্চিমবঙ্গে সরকারের চাকরি এবং পাঁচ লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে।' পরে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকেও সে কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী।

বন্ধ করুন