বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Mamata Banerjee: ‘বিজেপির নবান্ন অভিযানে লোক হয়নি, পাত্তা দেওয়ার দরকার নেই’, মন্তব্য মমতার
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Mamata Banerjee: ‘বিজেপির নবান্ন অভিযানে লোক হয়নি, পাত্তা দেওয়ার দরকার নেই’, মন্তব্য মমতার

  • অন্যদিকে নবান্ন অভিযান নিয়ে দলের অন্দরেই গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছে। কারণ দিলীপ ঘোষের ঘোষণা। আর সেই ঘোষণাকে মান্যতা দিতে নারাজ সুকান্ত মজুমদার। আবার নিজেকে বিরাট নেতা বলে ভাবেন বিরোধী দলনেতা। সেখানে তিনি বিশেষ দাগ কাটতে পারেননি। সুতরাং গোটা বিষয়টাই ফ্লপ শো। এই ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আজ, মঙ্গলবার বিজেপি যে নবান্ন অভিযান করল সেটাকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারণ বিজেপি রাজনৈতিকভাবে এঁটে উঠতে পারছে না। তাই প্রচারের আলোয় আসার জন্য এইসব করছে। তাই তাতে গুরুত্ব দেওয়ার দরকার নেই বলে খড়গপুরের দলীয় বৈঠকে মন্তব্য করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী নন্দীগ্রামে গণআন্দোলন জোরদার করার বার্তা দেন তিনি।

ঠিক কী বলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো?‌ আজ, মঙ্গলবার থড়গপুরের দলীয় বৈঠকে বিজেপির নবান্ন অভিযান নিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো নিজের মত প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘‌বিজেপির নবান্ন অভিযানে লোক হয়নি। লাইম লাইটে আসার জন্য ওরা এসব করছে। ওদের বেশি গুরুত্ব দেওয়ার দরকার নেই।’‌ এই মন্তব্য তিনি যখন করছেন তখন বিজেপির অন্দরের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে এসেছে। কারণ দিলীপ ঘোষ ঘোষণা করে দিচ্ছেন নবান্ন অভিযান শেষ। আর সুকান্ত মজুমদার বলছেন, তাঁর মিছিল এখনও শেষ হয়নি।

তৃণমূল কংগ্রেস ঠিক কী বলছে?‌ এদিকে আজ বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে গ্রেফতার করে লালবাজারে নিয়ে যাওয়া হয়। এই নিয়ে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। শুভেন্দুর আটকের ভিডিও পোস্ট করে তৃণমূল কংগ্রেস লিখেছে, ‘‌৫৬ ইঞ্চির চওড়া ছাতির মডেল ধরা পড়ে গিয়েছে।’‌ একটি ভিডিয়ো টুইট করে আবার তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তিনটি হাসির ইমোজি পোস্ট করেন। যা কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে হিসাবে লেগেছে শুভেন্দুর বলে মনে করা হচ্ছে।

কী অবস্থা হল বিজেপির?‌ অন্যদিকে নবান্ন অভিযান নিয়ে দলের অন্দরেই গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছে। কারণ দিলীপ ঘোষের ঘোষণা। আর সেই ঘোষণাকে মান্যতা দিতে নারাজ সুকান্ত মজুমদার। আবার নিজেকে বিরাট নেতা বলে ভাবেন বিরোধী দলনেতা। সেখানে তিনি বিশেষ দাগ কাটতে পারেননি। সুতরাং গোটা বিষয়টাই ফ্লপ শো। এই ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কারণ যেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছিল আটকালে পথে বসে পড়তে হবে সেখানে দেখা গেল দলীয় সিদ্ধান্ত না মেনে শুভেন্দু নিজেই প্র্‌জন ভ্যানে গিয়ে বসলেন।

বন্ধ করুন